June 24, 2017, 1:04 pm | ২৪শে জুন, ২০১৭ ইং,শনিবার, দুপুর ১:০৪

সৌরশক্তির সাতটি অসাধারণ ব্যবহারে বদলে যাবে বিশ্ব

22সূর্যের প্রায় অফুরন্ত শক্তিকে বিভিন্ন উপায়ে ব্যবহার করে আমাদের দৈনন্দিন চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। সৌরশক্তি ব্যবহার করে বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ জ্বালানী সাশ্রয় করতে সক্ষম হচ্ছে। সৌরশক্তি আহরণের জন্য কাউকে কোনো বিল দিতে হয় না বিধায় দীর্ঘমেয়াদে সৌরশক্তি অত্যন্ত সাশ্রয়ী। এ লেখায় থাকছে সৌরশক্তির  সাতটি অসাধারণ ব্যবহার। ঠিকভাবে ব্যবহার করা সম্ভব হলে এ প্রযুক্তির মাধ্যমে বদলে যাবে বিশ্ব। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ইন্টারেস্টিং ইঞ্জিনিয়ারিং। ১. এয়ার কন্ডিশন সৌরশক্তি ব্যবহার করে এয়ার কন্ডিশনার চালানো সম্ভব। এ ধরনের এয়ার কন্ডিশনার শীতকালে ঘরকে যেমন গরম রাখবে তেমন গরমকালে ঘরকে ঠাণ্ডা করতে সক্ষম। এর মধ্যে সৌরশক্তির সাহায্যে শীতকালে ঘর গরম করার ব্যবস্থা কিছুটা সহজলভ্য। তবে গরম ঘরকে ঠাণ্ডা করার ব্যবস্থা স্থাপন কিছুটা ব্যয়বহুল হলেও তা দীর্ঘমেয়াদে ব্যয় সাশ্রয়ী। ২. সোলার বেলুন বেলুন শুধু চিত্তবিনোদনের কাজেই ব্যবহৃত হয় না, ইন্টারনেট যোগাযোগের উপকরণসহ বহু কাজেই ব্যবহৃত হতে পারে। সৌরশক্তির সাহায্যে বেলুন উড়ানো সম্ভব। এতে কোনো জ্বালানি ছাড়াই দীর্ঘদিন বেলুন আকাশে উড়তে পারবে। ৩. সৌর চিমনি সৌর চিমনির মাধ্যমে বাড়ির ভেতরের নানা দূষিত গ্যাস ও ধুলোবালি দূর করে স্বাস্থ্যসম্মত বাড়ি নিশ্চিত করা সম্ভব। এজন্য বাড়িতে চিমনি স্থাপন করে সে চিমনির সঙ্গে সৌরশক্তিচালিত ফ্যান স্থাপন করতে হবে। এ ফ্যানগুলো কোনো বিদ্যুৎ ব্যবহার না করেই বাড়ির ভেতর থেকে দূষিত পদার্থ বাইরে বের করে দেবে। ৪. সোলার ডাস্টবিন ডাস্টবিনেও ব্যবহার করা যায় সৌর প্রযুক্তি, যা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করে শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখতে সহায়তা করে। সম্প্রতি মার্কিন একটি প্রতিষ্ঠান এ ধরনের সৌরশক্তিচালিত ডাস্টবিন তৈরি করেছে। এ ডাস্টবিনগুলোতে স্থাপিত হয়েছে একটি ছোট সৌর প্যানেল ও ১২ ভোল্টের ব্যাটারি। সৌরশক্তিচালিত ডাস্টবিনগুলো ময়লাকে চাপ দিয়ে সংকুচিত করবে। ফলে ছোট ডাস্টবিনেই বহু ময়লা রাখা যাবে। এছাড়া এটি ভেতরের ময়লা জমার তথ্য ক্রমাগত সংরক্ষণ করবে ও তা নিকটস্থ সরকারি অফিসকে সরবরাহ করবে। ফলে ডাস্টবিনগুলো কখন ভর্তি হয়ে যাচ্ছে সে তথ্য জেনে সঠিক সময়ে তা পরিষ্কারের জন্য মানুষ পাঠানো সম্ভব হবে। এতে ডাস্টবিন উপচে পড়ে রাস্তাঘাট নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনাও থাকবে না। ৫. সৌর চুলা সৌরশক্তির সাহায্যে রান্না করার প্রযুক্তিতে সরাসরি সূর্যের তাপ ব্যবহার করেই খাবার রান্না করা সম্ভব। এ প্রযুক্তি খুব একটা ব্যয়বহুল নয়। এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে একসঙ্গে বহু মানুষের রান্না করা সম্ভব। বহু মডেলের সৌর চুলা রয়েছে। ৬. সৌর বাতি সৌরশক্তির সাহায্যে বাতি জ্বালানোর প্রযুক্তি নতুন নয়। আমাদের দেশেও এ প্রযুক্তি ব্যবহৃত হচ্ছে। আগে সৌর প্যানেল ও ব্যাটারির দাম বেশি থাকায় সৌরশক্তির সাহায্যে বাতি জ্বালানোর পদ্ধতি ব্যয়বহুল ছিল। বর্তমানে এসব প্রযুক্তির দাম কমে আসায় বিশ্বের বহু দেশ বাতি জ্বালানোর কাজে সৌরশক্তি ব্যবহার করছে। ৭. পানি গরম করা পানি গরম করার জন্য সৌরশক্তি ব্যবহার অত্যন্ত সহজ ও অল্প ব্যয়ের প্রযুক্তি। এ প্রযুক্তিতে শুধু সূর্যতাপের মতো নয় বরং তার চেয়েও গরম পানি উৎপাদন করা যায়। এ প্রযুক্তিতে গরম পানি উৎপাদন করে তা শিল্প-কারখানা, ব্যবসা-বাণিজ্য ও গৃহস্থালীর কাজে ব্যবহার করা হয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল