June 28, 2017, 11:34 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বুধবার, সকাল ১১:৩৪

চলচ্চিত্রের মধ্যে ডুব দিয়েছেন রুশদি

M_Id_351635_Salman_Rushdieঢাকা জার্নাল: লেখক হিসেবে নয়, ‘মিডনাইটস চিলড্রেন’ উপন্যাসের চলচ্চিত্র সংস্করণ তৈরির সময় সক্রিয় ভূমিকা রাখতে পেরে খুশি সলমান রুশদি৷ নতুন এই অভিজ্ঞতার মধ্যে তিনি নিজের জীবনের অনেক ঘটনারও মিল পাচ্ছেন৷

নাম জোসেফ অ্যান্টন৷ নাম নয়, ছদ্মনাম৷ কাহিনিটি আসলে লেখক সলমান রুশদিকে ঘিরে৷ কাহিনিও নয়, আত্মজীবনী৷ ১৯৮৮ সালে তাঁর উপন্যাস ‘স্যাটানিক ভার্সেস’ প্রকাশিত হবার পরের ঘটনা সবার জানা৷ ইরানের তৎকালীন নেতা আয়াতোল্লাহ খোমেইনি ফতোয়া জারি করার পর থেকে রুশদিকে বছরের পর বছর ধরে প্রাণভয়ে আত্মগোপন করে থাকতে হয়েছে৷ আজ সেই দিনগুলির দিকে ফিরে তাকিয়ে অনেক উপলব্ধি হয় তাঁর৷

সংবাদ সংস্থা এপি-র আলাপচারিতায় রুশদি তারই কিছু খণ্ডচিত্র তুলে ধরেছেন৷ রুশদি আপাতত তাঁর আরেক উপন্যাস ‘মিডনাইটস চিলড্রেন’-এর চলচ্চিত্র সংস্করণ নিয়ে ব্যস্ত৷ ৬৫ বছর বয়সে বেশ রোমাঞ্চও অনুভব করছেন তিনি৷

‘মিডনাইটস চিলড্রেন’ লিখেই গোটা বিশ্বে পরিচিতি পেয়েছিলেন সলমান রুশদি৷ ‘স্যাটানিক ভার্সেস’ ও তার পরের ঘটনা সেই পরিচিতির মাত্রা আরও বাড়িয়ে দিয়েছিল৷ আজ ‘জোসেফ অ্যান্টন’-এর দৃষ্টিকোণ থেকে নিজেকে দেখলে এ সবের মধ্যে একটা যোগসূত্র খুঁজে পান রুশদি৷ নিজের কোনো উপন্যাস এর আগে রূপালি পর্দায় ফুটে ওঠে নি৷

সাধারণত কোনো লেখকের কাছ থেকে শুধু বইয়ের সত্ত্ব কেনা হয়৷ চিত্রনাট্য বা শুটিং-এর বিষয়ে তাঁর বেশি কিছু বলার থাকে না৷ পরিচালক দীপা মেহতা কিন্তু ‘মিডনাইটস চিলড্রেন’ তৈরি করার সময় রুশদির সঙ্গে নানা বিষয়ে শলা-পরামর্শ করেছেন৷ বিশাল বইয়ের সব অংশ চলচ্চিত্রে তুলা ধরা সম্ভবই ছিল না৷ ১৪০ মিনিট দীর্ঘ ছবিতে অনেক বিষয় বাদ দিতে হয়েছে, ক্লাইম্যাক্স বা শেষ অংশেও কিছু পরিবর্তন করতে হয়েছে৷ সবই হয়েছে রুশদির সম্মতি ও সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে৷

এসবি/ডিজি (এপি)

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল