June 24, 2017, 1:00 pm | ২৪শে জুন, ২০১৭ ইং,শনিবার, দুপুর ১:০০

১ মে অনিবন্ধিত সিম তিন ঘণ্টা অকার্যকর থাকবে: তারানা

Tarana_halimঢাকা জার্নাল: ৩০ এপ্রিলের মধ্যে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে মোবাইল ফোনের সিম নিবন্ধন না করলে, ১ মে সব অনিবন্ধিত সিম প্রাথমিকভাবে তিন ঘণ্টার জন্য অকার্যকর থাববে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে এয়ারটেল আয়োজিত সচেতনতামূলক শোভাযাত্রা শুরুর আগে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন সম্পন্ন করার আহ্বান জানিয়ে এ শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়।

তারানা হালিম বলেন, ‘প্রথমদিন তিন ঘণ্টা অকার্যকর থাকার দুই একদিন পর আবার কিছু সময় অনিবন্ধিত সিম অকার্যকর থাকবে। এভাবে এক সময় সিমটি একেবারেই অকার্যকর হয়ে যাবে।’

বায়োমেট্রিক পদ্ধতির সাড়া কেমন পাচ্ছেন- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘গত দুই সপ্তাহে আমরা ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। দুই সপ্তাহে নিবন্ধনের সংখ্যা ব্যাপক হারে বেড়েছে। এই গতি যদি অব্যাহত থাকে তাহলে আমাদের লক্ষ্যমাত্রা পূর্ণ হবে। আজ পর্যন্ত আমরা সাত কোটি অতিক্রম করেছি।’

তিনি জানান, হিসাব অনুযায়ী ১৩ কোটির ওপরে সিম হোল্ডার রয়েছে। যারা অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা করে ও সাংঘর্ষিক কর্মকাণ্ডে সিমগুলো ব্যবহার করে তারা এই প্রক্রিয়ার কারণে ঝরে পড়বে।

ব্যাপক সাড়া দেওয়ার জন্য জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘জনগণকে ধন্যবাদ জানাই। তারা এই প্রক্রিয়ার সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে আমাদের ওপর আস্থা স্থাপন করে রাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্য এ বিষয়ে ব্যাপক সাড়া দিয়েছেন।’

তারানা হালিম জানান, বাংলাদেশের যেসব নাগরিক বিদেশে  বসবাস করে তাদের জন্য আজ একটা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। অন্তত পক্ষে এক বছর তাদের সিমটি অন্য কোথাও যেন বরাদ্দ না দেওয়া হয়। যেন তারা এক বছরের মধ্যে সিমটি নিবন্ধন করে নিতে পারে।

তিনি আরো জানান, জাতীয় পরিচয়পত্রে ভুল থাকার কারণে যারা নতুন করে জাতীয় পরিচয়পত্র করতে দিয়েছেন, তাদেরও বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন করতে কোনো অসুবিধা হবে না। তারা জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে যে আবেদন করেছেন, সেই আবেদনের নম্বর দিয়ে সিম নিবন্ধন করতে পারবেন। জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের জন্য তিনি যে আবেদন করেছেন সেই আবেদনের প্রমাণপত্র নিয়ে গেলে সিম নিবন্ধন করা যাবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিটিআরসির চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, এয়ারটেলের প্রধান নির্বাহী (সিইও) পিডি শর্মা ও রুবাবাদৌলা মতিনসহ এয়ারটেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

পরে প্রেসক্লাব থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়ে দোয়েল চত্বর ঘুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে এসে শেষ হয়।

ঢাকা জার্নাল, এপ্রিল ২৪, ২০১৬।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল