June 28, 2017, 11:34 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বুধবার, সকাল ১১:৩৪

৫ শতাংশ ইন্টারনেট ইউজার শুধু সেক্স পার্টনার খোঁজে

sexting

স্মার্টফোন ব্যবহারের ফলে কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রকাশ্যে যৌন সম্পর্কের আহ্বান করার প্রবণতা বাড়ছে। এতে ইন্টারনেট-পার্টনারের সঙ্গে তৈরি হচ্ছে অনিরাপদ যৌন সম্পর্ক। সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার (ইউএসসি) এক গবেষণায় এ তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।
গবেষণায় বলা হয়েছে, মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার না করা টিনএজারদের তুলনায় স্মার্টফোন ব্যবহারকারী টিনএজাররা গড়ে দেড়গুণ সেক্সুয়াল কাজ, দ্বিগুণ সেক্সে আহ্বান এবং দ্বিগুনের বেশি ইন্টারনেট-পার্টনারের সঙ্গে সেক্সে লিপ্ত হয়।

গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, ইন্টারনেটে সেক্সের আহ্বান করা বেশিরভাগ টিনএজাররা অনিরাপদ যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ৫ শতাংশ টিনএজার শুধু সেক্স পার্টনার খোঁজার জন্য ইন্টারনেট ব্যবহার করে। ১৭ শতাংশ টিনএজার এমন সব পার্টনারদের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হয় যাদের সম্পর্কে তাদের কোনও ধারণা নেই।

গবেষণায় দেখা যায়, বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণবোধকারীদের তুলনায় সমকামী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ইন্টারনেটে পাঁচগুণ বেশি সেক্স-পার্টনার খোঁজে। দেখা গেছে, মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী টিনএজারদের এক-তৃতীয়াংশই মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করে। ইউএসসি’র গবেষক হ্যালি ওয়াইনট্রোব বলেন, ‘পিতামাতা, স্বাস্থ্যশিক্ষক, চিকিৎসকদের জেনে রাখা উচিত সেক্স-পার্টনারদের সঙ্গে মিলিত হওয়ার ক্ষেত্রে কিশোর বয়সিদের নতুন মাধ্যম সেলফোন।’

এ ব্যাপারে পিতামাতাদের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন হ্যালি। এছাড়া অনিরাপদ যৌন মিলন ও অপরিকল্পিত গর্ভধারণ রোধে কনডম ব্যবহারেরও পরামর্শ দেন তিনি।

Please visit for online ranking
http://www.alexa.com/

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল