July 27, 2017, 10:42 pm | ২৭শে জুলাই, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ১০:৪২

২৭ এপ্রিল হেফাজতের বিরুদ্ধে নারী গণ সমাবেশ

8483986226_edb770fbed_zঢাকা জার্নাল: হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফার বিরুদ্ধে ঢাকায় প্রতিবাদী নারী গণ সমাবেশের প্রস্তুতি চলছে পুরোদমে৷ আয়োজকরা আশা করছেন এই সমাবেশে ঢাকাসহ সারাদেশ থেকে ৪/৫ লাখ নারীর সমাবেশ ঘটবে৷ আর এই সমাবেশে সব শ্রেণির নারীর উপস্থিতি থাকবে৷

২৭শে এপ্রিলের নারী গণ সমাবেশ সফল করতে তাদের প্রচার কর্মীরা ঢাকাসহ সারাদেশে লিফলেট বিতরণ করছেন৷ বিভিন্ন নারী সংগঠন, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের সঙ্গে করছেন মত বিনিময়৷ মত বিনিময় করছেন পেশাজীবী এবং শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে৷ আর ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও চলছে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা৷ সংগঠকদের একজন সুপ্রীতি ধর জানান, তারা সমাবেশের আগে বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করে সমাবেশের ব্যাপারে দেশবাসীকে বিস্তারিত জানাবেন৷ তাদের আশা, এই প্রতিবাদী নারী গণ সমাবেশে চার থেকে পাঁচ লাখ নারীর সমাবেশ ঘটবে৷

এই সমাবেশের প্রচার কমিটির সমন্বয়কারী শিপ্রা বোস  জানান, ৬৭টি নারী সংগঠন তাদের সঙ্গে এক হয়েছেন৷ এছাড়া বিভিন্ন পেশাজীবী গ্রুপ, নারী শ্রমিক, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা, এমনকি তৃনমূলের নারী ও গৃহবধুদের সঙ্গেও তারা যোগাযোগ করছেন এবং তাদের কাছ থেকে পাচ্ছেন ব্যাপক সাড়া৷ এই সমাবেশে প্রধানত ঢাকা এবং আশেপাশের জেলা থেকে নারীরা অংশ নেবেন বলে জানা গেছে৷ থাকবে সারা দেশ থেকে নারীদের প্রতিনিধিত্বও৷

শুধু তাই নয়, তারা আশা করেন তৈরি পোশাক শিল্পসহ বিভিন্ন শিল্পে কর্মরত নারীরা ব্যাপকভাবে এই সমাবেশে অংশ নেবেন৷ তারা মনে করেন, হেফাজতের ১৩ দফা বাস্তবায়ন হলে নারীরাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবেন৷

শিপ্রা বোস জানান, ২৭শে এপ্রিলের সমাবেশের উদ্যোক্তা নারীরা, তবে সেখানে পুরষরাও থাকবেন এবং সংহতি জানাবেন৷ তাদের অংশগ্রহণ ছাড়া এই সমাবেশ পূর্ণতা পাবে না, যেমন নারী-পুরুষের সমান অংশগ্রহণ ছাড়া সমাজ, রাষ্ট্র পূর্ণতা পায় না৷

সুপ্রীতি ধর জানান, হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফা দাবি মানলে দেশ অন্ধকার যুগে চলে যাবে৷ স্বাভাবিকভাবেই তারা নারীকে গৃহবন্দি করতে চায়৷ কিন্তু আধুনিক যুগে নারী-পুরুষের সমান অংশগ্রহণ ছাড়া অর্থনৈতিক বা সামাজিক – কোনো ধরণের উন্নয়নই সম্ভব নয়৷ হেফাজতে ইসলাম মূলত জামায়াত শিবিরকে রক্ষায় ইসলাম রক্ষার নামে মাঠে নেমেছে৷ আর তা করতে গিয়ে তারা নারীর অমর্যাদা করছে৷ তাই তাদের এই হীন প্রচেষ্ঠা কখনোই সফল হবে না৷

হেফাজতে ইসলাম বলছে, নারীদের বিভ্রান্ত করা হচ্ছে৷ তাদের বিভ্রান্ত করে মাঠে নামানো হচ্ছে৷ এর জবাবে শিপ্রা বোস বলেন, তাদের কেউ মাঠে নামায়নি, তাঁরা নিজেদের রক্ষায় নিজেরাই মাঠে নেমেছন৷ তিনি বলেন, হেফাজতে ইসলামই আসলে বিভ্রান্ত৷ তারাই বিভ্রান্তি ছাড়াচ্ছে৷ তাই ঢাকায় নারী গণ সমাবেশের মধ্য দিয়ে হেফাজতে ইসলামকে জবাব দেয়া হবে৷

সুপ্রীতি ধর বলেন, এই সমাবেশের পর তারা বিভাগীয় এবং জেলা শহর থেকে শুরু করে তৃনমূল পর্যন্ত তাদের আন্দোলন বিস্তৃত করবেন৷ আশা এটাই যে এর ফলে, স্বাধীন বাংলাদেশে ধর্মান্ধ মৌলবাদী গোষ্ঠি কখনোই তাদের ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে পারবে না৷

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল