June 28, 2017, 7:53 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বুধবার, সকাল ৭:৫৩

টোকিওতে পি.আর. প্ল্যাসিডের বই প্রদর্শণী

pr-placid-newইকবাল হাসান : জাপান প্রবাসী লেখক পি.আর প্ল্যাসিডের একক বই প্রদর্শণী অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (২৭ নভেম্বর) টোকিওর কিতা ওয়ার্ডস্থ আকাবানে ভিবিও হলে এ প্রদর্শণী অনুষ্ঠিত হয়।

লেখক জাপানের প্রথম বাংলা অনলাইন পত্রিকা বিবেকবার্তার সম্পাদক। ১৯৮০ দশক থেকে লেখালেখি করলেও ১৯৯১ সনে জাপান যাবার পরেই তার বই প্রকাশ হয়। এখনো তিনি জাপান প্রবাসী। প্রবাস জীবনে কঠোর পরিশ্রম করার পাশাপাশি পি.আর. প্ল্যাসিড নিয়মিত লেখালেখি চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ পর্যন্ত প্রকাশিত তার বইএর সংখ্যা মোট ১৪টি। দুইটি ছোট গল্প এবং বাকী গুলো উপন্যাস গ্রন্থ। টোকিওতে প্রতিবছর অনুষ্ঠিত বৈশাখী মেলায় তিনি বইএর স্টল দেন। এবছর বইপত্র প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে তার আলোচিত উপন্যাস ”দোলা” এবং ”বই মেলায় পরিচয়”। বই দুইটির কাটতি মেলায় খুব ভালো ছিল।

আগামী একুশে মেলায় তার আরো তিনটি বই প্রকাশের কথা জানিয়েছেন তিনি। বই তিনটির নাম জাপানীজ বধু, টোকিওর চিঠি এবং গর্ভধারীনি। এছাড়া এই বছর বড়দিন উপলক্ষে প্রকাশ হবে ছোট গল্পর বই ”এ্যানিদির বিয়ে”।

লেখক জানান, জাপান বাংলাদেশের মধ্যে এই সাহিত্য নিয়ে আরো বেশী কাজ করতে চান তিনি। ইতোমধ্যে তিনি হিরোশিমা কথা বলে নামে একটি বই সম্পাদনা করেছেন। বইটি হিরোশিমায় প্রথম পারমানবিক বোমা নিক্ষেপের ফলে ধ্বংস প্রায় শহরে কাকতলীয়ভাবে বেচে যাওয়া ভুক্তভুগীদের বাস্তব অভিজ্ঞতা জাপানি এবং বাংলা দুই ভাষায় সম্পাদনা করেছেন তিনি। বইটির জন্য জাপানেই তিনি ব্যাপক সম্মান পেয়েছেন। সম্প্রতি বইটি চাইনিজ ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে।

আগামীতে রাশিয়ান, ফ্রান্স ও ফিলিপিনো ভাষাসহ আরো কয়েকটি দেশের ভাষায় প্রকাশ হবার কথা জানিয়েছেন জানান জাপান প্রবাসী এই লেখক।

আগামী মার্চ মাসে তিনি টোকিওতে বাংলাদেশ থেকে প্রকাশক এবং লেখকদের সমন্বয়ে বই মেলা করার কথা চিন্তা-ভানা করছেন। তারই প্রস্ততি হিসাবে তার এই বই প্রদর্শণী এবং বিষেশ সাহিত্য আড্ডার যাত্রা শুরু করেন।

প্রদর্শণীর দিন বিকেললে প্রতিকূল আবহাওয়া মধ্যে পরিচিত-অপরিচিত অনেক বই প্রেমীদের উপস্থিতি ছিল প্রদর্শণীতে।

এই প্রসঙ্গে লেখক বলেন, বইপত্র নিয়ে কোন কাজ করলে খুব বেশী লোকের সমাগম হবে এমনটা আমি আশা করতে পারি না। কারণ জাপানে বই পড়ার লোক নেই বললেই চলে। তারপরেও আমি নিরলসভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছি টোকিওতে বাংলা বইয়ের পাঠক আরো বেশী বাড়ানোর জন্য।

ঢাকা জার্নাল, নভেম্বর ২৮, ২০১৬।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল