July 23, 2017, 8:58 pm | ২৩শে জুলাই, ২০১৭ ইং,রবিবার, রাত ৮:৫৮

প্রিয়াঙ্কার জীবনে ‘ডামাডোল’

damadol_stঢাকা জার্নাল: ডামাডোল-এর মাঝেই ফেঁসে গিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। অবশ্য শুধু প্রিয়াঙ্কা একা নন, ডামাডোলের মধ্যে রয়েছেন অনিন্দিতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর গুঞ্জন দরিয়ানানি নামের দুই বালাও!

আসলে একেবারে ঢাক-ঢোল পিটিয়ে প্রেক্ষাগৃহে আসছে নতুন বাংলা ছবি ‘ডামাডোল’। সম্প্রতি শহরের একটি অভিজাত হোটেলে হয়েও গেল ‘ডামাডোল’-এর প্রেস কনফারেন্স। তা, ছবির নাম যখন ‘ডামাডোল’, তখন সেখানে কোনও ‘শোরগোল’ হবে না- তাও কি হয়! হলও তাই, মস্ত শোরগোলই পড়ল, যখন বৈঠকে এলেন না খোদ শাশ্বতই!

তাছাড়া, ‘ডামাডোল’ করতে করতে কি কোনও ডামাডোলই ঘটেনি শ্যুটিং-এ? এও আবার হয় না কি! হাতের কাছে পাওয়ার পর প্রশ্নটা করা হল প্রিয়াঙ্কাকে। ব্যস,ঝুলি থেকে বিড়াল গেল বেড়িয়ে! তবে এ ডামাডোল শ্যুটিং-এ নয়, খোদ প্রিয়াঙ্কার জীবনে। কী সেই ডামাডোল? শুনুন প্রিয়াঙ্কার মুখে, ‘এই ছবিতে একটি ছেলে রোজ আমায় চিঠি লেখে। কিন্তু কিছুতেই দেখা করে না। আরে এই গল্পটা শুনেই তো আমার নিজের কথা মনে পড়ে গিয়েছিল। তখন আমি সিক্স-সেভেনে পড়ি। একটা ছেলেকে খুব ভাল লাগতে শুরু করল। ওই বয়সে যা হয় আর কী। দেখেই প্রেমে পড়ে গিয়েছিলাম। তাকে চিঠি লেখা শুরু করলাম। সব চিঠির শেষে শুধু লিখতাম ‘ইতি তোমার মিষ্টি গার্ল’। কিছুতেই নাম লিখতাম না। দেখাও করতাম না। আর এদিকে একের পর এক প্রেম পত্তর পেয়ে তো সেই ছেলে একেবারে গলে জল। আমাকে দেখার জন্য তো তার আকুলি বিকুলি অবস্থা। শেষমেশ বন্ধুরাই জোর করে আমায় ঠেলে দিল সেই ছেলের দিকে। আমাদের দেখা হল। প্রেমও শুরু হল। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই মা-বাবা জেনে গেল। ব্যস, বাড়িতে লেগে গেল ডামাডোল। ওই ভাবে কি আর প্রেম করা যায়! প্রেম আমার গেল ভো-কাট্টা হয়ে’!

তা, প্রিয়াঙ্কার না-হয় তখন ছিল কাঁচা বয়স, বাড়ির ডামাডোলে নিজের প্রেমের ঢোল নিজেই ফাটিয়ে ফেলেছিলেন। কিন্তু পাকা বয়সের তিন তিনটে হিরো অত সুন্দরী সুন্দরী হিরোইন থাকতে ‘ডামাডোল’ করতে করতে একটুও বেসামাল হয়নি শ্যুটিং-এ? একটু খোঁচা মারতেই মুখ খুললেন প্রযোজক অজয় ঝুনঝুনবালা, ‘ওরে বাবা! সে আর বলতে! শ্যুটিং চলাকালীন কার সঙ্গে যে কার কখন কী ডামাডোল চলছে- বুঝতে বুঝতেই নতুন কোনও ডামাডোল লেগে যেত। না বাবা, আর বলা ঠিক হবে না। ওদের সঙ্গে আলোচনা করে তারপর না হয় বলব’, এটুকু বলেই পালিয়ে গেলেন অজয়।

আর নায়কেরা? সাহেব বা সমদর্শী বা রাজদীপ অবশ্য ও পথে গেলেনই না। বদলে তাঁরা কী বললেন? তাঁরা বললেন, ‘ডামাডোল দারুণ একটা সিচুয়েশনাল কমেডি ছবি। বাংলা ছবিতে এমন কমেডি খুব একটা হয়নি। আমরা একেবারেই জোর করে পেটে খিল দিয়ে হাসানোর চেষ্টা করিনি। ছবিটা দেখুন, ভাল লাগবে’।

এখন ‘ডামাডোল’ সত্যি সত্যিই দর্শকের মনে ঝড় তুলবে কি না, তা অবশ্য বোঝা যাবে ২২ ফেব্রুয়ারি। ওই দিনেই যে এই ছবির মুক্তি!

ঢাকা জার্নাল, মার্চ ৩, ২০১৩

সূত্র আনন্দবাজার পত্রিকা। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল