June 28, 2017, 7:58 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বুধবার, সকাল ৭:৫৮

চুমুতে ব্যাকটেরিয়া

chumuঢাকা জার্নাল: আর একদিন পরেই ভ্যালেন্টাইন’স ডে অর্থাৎ ভালোবাসা দিবস। সারা বিশ্বের কোটি কোটি প্রেমিক যুগল এর জন্য পরম আকাঙ্ক্ষিত একটি দিন। প্রতি বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি একযোগে সারা বিশ্বে এই দিবসটি পালন করা হয়।

ভালোবাসার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বহিঃপ্রকাশ চুমু। কিন্তু সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, চুমুর মাধ্যমে সঙ্গীর সঙ্গে ভালোবাসার অনুভূতিই শেয়ার করার পাশাপাশি, শেয়ার করা হয় ৮০ মিলিয়ন ব্যাকটেরিয়াও।

বিজ্ঞানীদের মতে, ১০ সেকেন্ডের চুমুতে ৮০ মিলিয়ন ব্যাকটেরিয়া একজনে মুখ থেকে অন্যজনের মুখে প্রবেশ করে। ‘গভীর চুম্বনের ‍ওপর ওরাল ব্যাকটেরিয়ার প্রভাব’ শীর্ষক একটি গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। গবেষণাটি করেছে নেদারল্যান্ডের অর্গানাইজেশন ফর অ্যাপলায়েড সায়েন্টিফিক রিসার্চের গবেষক দল।

গবেষক দল ২১ প্রেমিক যুগলের চুম্বন আচরণ পরীক্ষা করে গবেষণা প্রতিবেদনে এমন তথ্য দিয়েছেন। গবেষণার জন্য তারা স্বেচ্ছাসেবক প্রেমিক যুগলদের ১০ সেকেন্ড চুম্বনে অংশ নেওয়ার আগে ও পরে তাদের মুখ ও থুতু থেকে কিছু ব্যাকটেরিয়ার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। গবেষণায় প্রেমিক যুগলের প্রথম চুম্বনে বেশ কিছু ব্যাকটেরিয়া চিহ্নিত করেন বিজ্ঞানীরা। যুগলের ১০ সেকেন্ডের দ্বিতীয় চুম্বনের পরীক্ষায় তারা একজন থেকে আরেকজনের মধ্যে ৮০ মিলিয়ন ব্যাকটেরিয়া ছড়িয়ে পড়ার প্রমাণ পেয়েছেন।

তবে তারা বলছেন, আমাদের মুখে যে অসংখ্যা ব্যাকটেরিয়া রয়েছে, এদের মধ্যে বেশিরভাগ ব্যাকটেরিয়াই ক্ষতিকারক নয় ও সেগুলো বিভিন্ন ধরনের রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। তাই এই দৃষ্টিকোণ থেকে বিবেচনা করলে, চুমু খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, মানুষের মুখে ১০০-২০০ ধরনের ব্যাকটেরিয়ার বসবাস রয়েছে এবং অধিকাংশই ভালো।

ঢাকা জার্নাল,১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল