June 28, 2017, 11:32 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বুধবার, সকাল ১১:৩২

মাহমুদুর রহমানের ওপর অত্যাচারের অভিযোগ

130419171257_bd_mahmudur_rahman_304x171_focusbanglaঢাকা জার্নাল: দৈনিক আমার দেশের কারাবন্দী সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর সরকারের নিরাপত্তা বাহিনী নির্যাতন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

শুক্রবার পরিবারের সদস্যরা কারাগারে মাহমুদুর রহমানের সঙ্গে সাক্ষাত করে এসে জানান, নির্যাতনের ফলে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দীন খান আলমগীর নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে একটি মামলায় সাতদিনের পুলিশি রিমান্ড শেষে কারাগারে নেওয়া হয়েছিল।

মাহমুদুর রহমান অসুস্থ হয়ে পড়ায় গত বৃহস্পতিবার তাকে কারাগার থেকে নেওয়া হয় শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসাপাতালের প্রিজন সেলে। সেখানে তার মা এবং স্ত্রীসহ পরিবারের সদস্যরা শুক্রবার দেখা করেন।

হাসপাতালে পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন নাগরিক অধিকার রক্ষা কমিটির নেতা ফরহাদ মজহার। তিনি অভিযোগ তুলেছেন, রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের সময় নির্যাতনের কারণে মাহমুদুর রহমান গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

মাহমুদুর রহমানের পরিবারের সদস্যদেরও একই বক্তব্য বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।

ফরহাদ মজহার বলেন, ‘আমি নিজে তাঁর প্রত্যেকটা হাত ধরে দেখেছি। মাহমুদুর রহমানের দু’হাতের কবজিতে গোল দাগএবং ক্ষতের চিহ্ন , পায়ে ক্ষতের চিহ্ন দেখেছি। তিনি অত্যন্ত দুর্বল এবং উঠতে পারছিলেন না। ফলে আমি তাঁর কানের কাছে গিয়ে কথা বলেছি।”

তবে মাহমুদুর রহমান নির্যাতনের কথা বলতে চাইছিলেন না। কারণ আবারও রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হতে পারে। এমন ভয় তাঁর মধ্যে রয়েছে,’ বলে মন্তব্য করেন ফরহাদ মজহার।

গ্রেফতারের পর রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীর।

তিনি বলেন,‘আমি মনে করি না যে , নির্যাতনের অভিযোগের ক্ষেত্রে সত্যতার কোন উপকরণ আছে। তাঁর বিরুদ্ধে ফৌজদারী অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে। আদালত তা বিচার করবে।’

মাহমুদুর রহমানকে গ্রেফতারের পর আমার দেশ পত্রিকার ছাপাখানা পুলিশ সিলগালা করে দেওয়ায় পত্রিকাটি প্রকাশ হতে পারছে না। এছাড়া পত্রিকার ১৯ জন কর্মচারীকে আটক এবং মাহমুদুরের মায়ের বিরুদ্ধেও পুলিশ মামলা করেছে।

এসব মামলা প্রত্যাহার এবং পত্রিকা প্রকাশের দাবিতে মাহমুদুর রহমান পাঁচদিন ধরে অনশন করছেন।

ফরহাদ মজহার বলেন, মাহমুদুর রহমান এখন আশংকাজনক অবস্থায় রয়েছেন। ফলে তাঁর অনশন ভঙ্গ করাতে দাবি পূরণ করাসহ সরকারেরই পদক্ষেপ নেওয়া উচিত বলে তারা মনে করেন।

তিনি বলেন, ‘একজন সম্পাদকের উপর নির্যাতনের যে নজির তৈরি করা হলো, এটা তো থেকে যাবে বাংলাদেশে।’

তবে পুলিশ বলছে অন্যকথা। তারা বলেছে, অনশনের কারণেই মাহমুদুর রহমান অসুস্থ হয়ে থাকতে পারেন।

এছাড়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীর বলেছেন, মাহমুদুর রহমানের দাবি পূরণের বিষয়টি সরকার এখনই বিবেচনায় নিচ্ছে না।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার দিক থেকে উদ্যোগ নেওয়ার কিছু নেই। তার বিরুদ্ধে ফৌজদারী অপরাধের অভিযোগ এসেছে, যা ক্ষমাযোগ্য নয়। এখানে মা’র মামলা প্রত্যাহার করতে হবে বা এটা করতে হবে – এ ধরণের দাবির কোন যৌক্তিকতা আছে বলে আমরা মনে করি না।’

মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের ট্রাইবুনালের একজন বিচারপতির কথোপকথন ফাঁস হওয়ার ঘটনা নিয়ে মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছিল মাহমুদুর রহমানকে।

পরে তাকে বিরোধীদলের হরতালে যানবাহন ভাঙচুরের মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

তিনটি মামলায় আদালত তাঁর ১৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিল। এরমধ্যে একটি মামলায় সাতদিনের রিমান্ড শেষে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

তবে হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন মাহমুদুর রহমান সুস্থ আছেন এবং তার শরীরে বিভিন্ন পরীক্ষা চালানো হয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল