June 29, 2017, 1:22 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ১:২২

বাহরাইনে বাংলাদেশির আত্মহত্যা

ঢাকা জার্নাল: বাহরাইনের গুদাইবিয়া এলাকায় শামসুল আরেফিন (২৮) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশি আত্মহত্যা করেছেন। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের পশ্চিম শরিফপুর গ্রামের সালাউদ্দিনের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) বিকেলে গুদাইবিয়ার পাকিস্তানি মসজিদের পাশে একটি ফ্ল্যাটে নিজের কক্ষ থেকে তার সিলিং ফ্যানে ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

শামসুল বাহরাইনের ফাহাদ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ আল দোসারী নামে একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ফ্রি ভিসায় এখানে এসেছিলেন, কিন্তু ভালো কোনো প্রতিষ্ঠানে কাজ না পেয়ে নিউ টাচ নামক একটি সাপ্লাই কোম্পানিতে যোগ দেন। সেখানেও পেতেন স্বল্প বেতন। থাকতেন গুদাইবিয়ায় ওই ফ্ল্যাটে বাংলাদেশির সঙ্গে গাদাগাদি করে।

তার রুমমেট ও সহকর্মীরা জানান, প্রতিদিনের মতো ভোর সাড়ে ৫টায় তারা কর্মস্থলে যাওয়ার সময় শামসুলকে ডাকেন। কিন্তু তিনি জানান, শরীর খারাপ বলে বাসায় বিশ্রাম নেবেন। কাজ শেষে রুমমেটরা বাসায় ফিরে দেখেন, ভেতর থেকে দরজা লক করা। পরে সেই তালা ভেঙে রুমে ঢুকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে শামসুলের মরদেহ ঝুলতে দেখা যায়।

খবর পেয়ে তৎক্ষণাৎ বাহরাইনের পুলিশ ও বাংলাদেশ দূতাবাসের জনকল্যাণ প্রতিনিধি তাজ উদ্দীন সিকান্দার ঘটনাস্থলে পৌঁছান। পরে পুলিশ শামসুলের মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল তৈরির জন্য নিয়ে যায়।

সহকর্মীরা জানান, শামসুল ৭ মাস আগে তার চাচাতো বোনের জামাই মাহবুল আলমের  মাধ্যমে ফ্রি ভিসায় বাহরাইন আসেন। কিন্তু কাজ না পেয়ে তিনি হতাশ হয়ে পড়েন। পরে শামসুল বাধ্য হয়ে নিউ টাচে স্বল্প বেতনে কাজ শুরু করেন।

শামসুলের বোন মারিয়া মোবাইলফোনে  জানান, বৃহস্পতিবার তার ভাইয়ের সঙ্গে ফোনে সবার কথা হয়েছে। কিন্তু কেন তিনি আত্মহননের মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিলেন, এ ব্যাপারে তারা কিছু বুঝতে পারছেন না।

শামসুলের মরদেহ এখন স্থানীয় সালমানিয়া মেডিকেল কমপ্লেক্স হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে ।

ঢাকা জার্নাল, মার্চ ১০, ২০১৭।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল