May 28, 2017, 6:16 pm | ২৮শে মে, ২০১৭ ইং,রবিবার, সন্ধ্যা ৬:১৬

বসুন্ধরা সিটিতে আগুন

Basundharaঢাকা জার্নাল: রাজধানীর অভিজাত শপিং কমপ্লেক্স বসুন্ধরা সিটির অগ্নিকাণ্ড প্রায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। সিটির নিজস্ব ফায়ার ফাইটিং ইউনিটের ত্বরিত তৎপরতায় সেখানে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। নিরাপদে আছেন সবাই।

রোববার (২১ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শপিং কমপ্লেক্সটির ছয়তলায় এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার আতাউর রহমান এ তথ্য জানান।

অগ্নিকাণ্ডের সঙ্গে সঙ্গেই তৎপর হয় বসুন্ধরা সিটির নিজস্ব ফায়ার ফাইটিং ইউনিট। এরপর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ১৪টি ইউনিট। তারা সিটির ফায়ার ফ‍াইটিং ইউনিটের সঙ্গে অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধার তৎপরতার কাজ শুরু করে।

দুপুর ১টার আগেই ফায়ার ফাইটিং ইউনিট ও ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী ইউনিট সিটির ছাদ থেকে ৬ জনকে ক্রেনের মাধ্যমে উদ্ধার করে। সেখানে এখনও রয়েছেন ৭-৮ জন। তবে তারাও নিরাপদে আছেন।

আতাউর রহমান জানান, ঘটনাস্থলে আমাদের ১৪টি ইউনিট কাজ করছে। আরও কয়েকটি ইউনিট আসছে।

উদ্ধারকারী কর্মীরা জানান, অগ্নিকাণ্ডের পর সিটির ছাদ থেকে দুই দফায় ছয়জনকে উদ্ধার করা হয়। এদের মধ্যে দু’জনের নাম কামরুল ও নুরুল।

ঘটনাস্থলে ছুটে আসা ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহমেদ বলেন, ছয়তলায় আগুন লাগলেও তা ছড়িয়ে পড়েনি। কয়েকজনকে উদ্ধার করেছি। আরও ৭-৮ জন ছাদে আছেন। তার‍া ভালো আছেন। তাদেরও নামিয়ে আনা হবে।

দুপুর সোয়া ১টার কিছু আগে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ফায়ার সার্ভিসের রিপোর্ট অনুযায়ী কেউ এখনও হতাহত হয়নি। যে ক’জন ছাদে রয়েছেন, তাদের উদ্ধারে তৎপরতা চলছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন) শেখ মোহাম্মদ মারুফ হাসান জানান, সবার সহযোগিতায় আগুন নির্বাপন কাজ সহজ হচ্ছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই আগুন পুরোরি নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হবে।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন ও মেনটেন্যান্স) মেজর এ কে এম শাকিল নেওয়াজ জানান, কিছুক্ষণের মধ্যেই ফায়ার সার্ভিসের বিশেষ ইউনিট ছয়তলায় ঢুকবে। আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসতে আর বেশি সময় লাগবে না।

ছয়তলার সি ব্লকের ‘লিবার্টি সু’ এর শো রুমের স্বত্বধিকারী সাখাওয়াত হোসেন বলেন, পুরো ছয় তলা জুতোর মার্কেট। এখানে আমারই দোকান আছে চারটি। অগ্নিকাণ্ডের সময় আমি দোকানে ছিলাম না। দোকানের কর্মচারী ফোন দিয়ে আমাকে অগ্নিকাণ্ডের খবর জানায়। তখন ছুটে আসি।

ঢাকা জার্নাল, আগস্ট ২১, ২০১৬

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল