June 28, 2017, 11:34 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বুধবার, সকাল ১১:৩৪

যেমন আচরণ, তেমন ফল : কামরুল

2012-08-16-10-43-46-502ccee24993e-law--kamrulঢাকা জার্নাল: বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি ইঙ্গিত করে আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, “পরিষ্কার কথা যে যেমন আচরণ করবেন, তাকে সেরকম ফল ভোগ করতে হবে।”

শুক্রবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু একাডেমী আয়োজিত আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জলিলের স্মরণ সভায় তিনি এ কথা বলেন।

রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম আব্দুল জলিলের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তবে আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, “জামায়াত-শিবিরকে প্রত্যক্ষ মদদ দিয়ে খালেদা জিয়া সংখ্যালঘুদের বাড়ি-ঘর জ্বালিয়ে দেওয়া, সমজিদের পবিত্রতা নষ্ট করা, জাতীয় পতাকার অবমাননা করা, সরকারী স্থাপনা ধ্বংসের কাজ করছেন। পরিষ্কার কথা যে যেমন আচরণ করবেন, তাকে সেরকম ফল ভোগ করতে হবে।”

আইন প্রতিমন্ত্রী বলেন, “বিএনপির নেতৃবৃন্দ যে কাজ করেছেন তার জন্য শীর্ষ নেতাসহ দলীয় নেতা-কর্মীদের পুলিশ আটক করেছে। সাদেক হোসেন খোকা, মীর্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীরসহ তিনজন শীর্ষ নেতা  আটকের পর কর্মীদের ফেলে নিজেরা বেরিয়ে এসেছেন। বাকিদের ফৌজদারী মামলায় আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।”

দলীয় কর্মীদের অনিরাপদ অবস্থায় ফেলে বিএনপির এই শীর্ষ তিন নেতার বেরিয়ে আসার সমালোচনা করে কামরুল কলেন, “আওয়ামী লীগের কোন শীর্ষ নেতা এ ধরণের কাজ করতে পারতেন না। আব্দুল জলিল, মতিয়া চৌধুরী হলে কর্মীদের ফেলে এভাবে চলে আসতেন না। আমি বেরিয়ে আসবো আর আমার কর্মীরা জেল হাজতে যাবে তা হতে পারে না। মতিয়া, আব্দুল জলিল হলে বলতেন, ‘কর্মীদের জেল হাজতে পাঠিয়ে আমি ঘরে ফিরে যাবো না’।”

তত্ত্বাবধায়ক সরকার ও বিএনপির এক দফা দাবি প্রসঙ্গে আইন প্রতিমন্ত্রী বলেন, “সহযোদ্ধা, সহকর্মীদের নিরাপত্তাহীনভাবে জেল হাজতে রেখে যারা ঘরে ফিরে যায়। তাদের দিয়ে কি আন্দোলন হবে।”

তিনি বলেন, “তারা (বিএনপি) সরকার পরিবর্তনের এক দফা আন্দোলন করছেন, আর জামায়াত-শিবিরকে প্রত্যক্ষ মদদ দিচ্ছে। গণজাগরণের বিরুদ্ধে কথা বলছে।”

দেশের অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির জন্য জামায়াত-শিবির প্রত্যক্ষবভাবে দায়ি উল্লেখ করে কামরুল বলেন, “এতে প্রত্যক্ষভাবে মদদ দিচ্ছে বিএনপি। তারা রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে সন্ত্রাসী কর্মসূচি দিচ্ছে। রাজনৈতিক কর্মসূচি আর সন্ত্রাসী কর্মসূচি এক নয়।” বিএনপিকে সন্ত্রসী কর্মসূচি না দিয়ে রাজনৈতিক কর্মসূচি দেওয়ার আহবান জানান প্রতিমন্ত্রী।

বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা ফৌজদারি মামলায় সরকার প্রভাব বিস্তার করবে না উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে।”

হেফাজতে ইসলামী প্রসঙ্গে আইন প্রতিমন্ত্রী বলেন, “ধর্মকে হেফাজত করার দায়িত্ব আল্লার। ইসলামকে হেফাজত করার দায়িত্ব আল্লার। হেফাজতে ইসলামীর নয়।”

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ব্যারিস্টার আমিরুল ইসলাম, শিক্ষক ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরী, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সতীষ চন্দ্র রায়, মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, যুগ্ম সম্পাদক হাজি মোহাম্মদ সেলিম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গোলাম সারওয়ার কবীর প্রমূখ।
ঢাকা জার্নাল, মার্চ ১৫, ২০১৩

এসএমএ/

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল