জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় ৯ জনের যাবজ্জীবন

ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২৪

জয়পুরহাট সদর উপজেলায় দিনমজুর নূরুল হককে হত্যার দায়ে নয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি তাদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও দুই বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় জয়পুরহাটের অতিরিক্ত দায়রা জজ-প্রথম আদালতের বিচারক মো. নূরুল ইসলাম এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন-জয়পুরহাট সদর উপজেলার ধারকী সোটাহার গ্রামের আব্দুর রউফ, রুহুল আমীন, আলী হোসেন, খোকন হোসেন, বেলাল হোসেন, রোকন হোসেন, বাবু হোসেন, মিজানুর রহমান ও সিরাজুল ইসলাম।

এসময় নির্দোষ প্রামাণ হওয়ায় সানোয়ার হোসেন ও কেতাব্বর হোসেন নামে দুই আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১ নভেম্বর সকাল ৯টায় নূরুল হকসহ কয়েকজন কৃষি শ্রমিক হিচমী বাজারের ব্যবসায়ী আমান উল্লাহর জমিতে ধান কাটছিলেন। এসময় আব্দুর রউফসহ ১৩ জন এবং অজ্ঞাত আরও আট/১০ জন সন্ত্রাসী লাঠিসোটা নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালান। এতে গুরুতর আহত হন নূরুল হক। তাকে প্রথমে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতাল ও পরে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখানেই তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় তার ছেলে মাসুম ওই দিনই ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও আট/১০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ১১ জনের নামে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার এ রায় দেন বিচারক।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মণ্ডল। আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট হেনা কবির।