June 29, 2017, 4:27 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ৪:২৭

জিল্লুর রহমান না থাকলে গণতন্ত্র ফিরে পেতাম না : শেখ হাসিনা

0,,15488681_4,00ঢাকা: প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর  না থাকলে মিলিটারী ব্যক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছ থেকে গণতন্ত্র ফিরে পেতান না বলে মন্তব্য করেছে প্রধানমস্ত্রী শেখ হাসিনা। 
রোববার জাতীয় সংসদে প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল জলিলের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাবের আলোচনায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
আব্দুল জলিল ছাড়া, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানসহ বরেণ্য রাজনীতিকদের ওপর শোক প্রস্তান নিয়ে আলোচনা করা হয়।
শোক প্রস্তাবের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “দেশের মানুষের জন্য তাঁর (জিল্লুর রহমান) প্রয়োজন ছিল খুব বেশি। আজকে যে গণতন্ত্র ফিরে এসেছে তা তার কারণে।”
তিনি বলেন, “মিলিটারী ব্যাক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মানুষ মনে করেছে, গণতন্ত্র বোধ হয় আর ফিরে আসবে না, মানুষের ভোটের অধিকার ফিরে আসবে না। কিন্তু তার শোক তাপ ভুলে দায়িত্ব পালন করেছেন।
শেখ হাসিনা বলেন, “দেশ থেকে গণতন্ত্র বিদায়ের যে চক্রান্ত হয়েছে। তিনি না থাকলে আমরা আর গণতন্ত্র ফিরে পেতাম না।”
শেখ হাসিনা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়কালের চিত্র তুলে ধরে বলেন, “আমি যখন গ্রেফতার হয়ে ছিলাম। তখন ঘোষণা দেই জিল্লুর রহমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি। গ্রেনেট হামলায় তিনি তার স্ত্রীকে হারান। আমরা ২২ জন তোকর্মীকে হারাই। এতে ৫শ’র মত নেতকির্মীকে আহত গতে হয়। জিল্লুর রহমান দায়িত্ব পাওয়ার এ সব শোক তাপ ভুলে তার দায়িত্ব পালন করেছেন।”
শেখ হাসিনা বলেন, “ওই সময় তিনি বলিষ্ট ভ ূমিকা রেখেছেন। গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনার জন্য যে আন্দোলন করেছেন তা কেউ ভূলে যায়নি।
পারিবারিক সম্পর্ক ছিল। সবাই সবার সুখে দুখে একাত্ম হয়ে চলি। ৮১ সালে আমি যখন ফিরে এলাম, তখন দল চালাতে সব সময় গাইড করতেন। কোনটা ভাল কোনটা মন্দ্র বোঝাতেন, কোন দলের জন্য এবং দেশের জন্য।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বঙ্গবন্ধুর ঘটিষ্টদের একজন বেঁছে ছিলেন জিল্লুর রহমান। তিনিও চলেন গেছেন । এটি একটি অধ্যায়ের শেষ।”
তিনি বলেন, “ইতোমধ্যে কয়েকটি অধ্যায়ের শেষ হয়ে গেল। সুর্য সেন, বিনোদ বিহারী, চলে গেলেন। এভাবে কয়েকটি অধ্যায়ের শেষ হয়েছে।”
শেখ হাসিনার বলেন, “জাতির পিতার সহচর ছিলেন জিল্লুর রহমান। তিনি ছোট বেলায় বা-মা হারিয়েছিলেন। তিনি চার বার সংসদ সদস্য পদ অলংকৃত করেছেন।
শেখ হাসিনা ভারপ্রাপ্ত স্পিকারকে জানান জিল্লুর রহমান ১৯৪৮ সাল থেকে ভাষা আন্দোলন করেছেন বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে। শোক প্রস্তাবে ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলন করেছেন লেখাটি সংশোধন করার অনুরোধ জানান। স্পিকার সংশোধনের কথা বলেন।
আব্দুল জলিলের অবদান স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমাকে যখন বার বার গ্রেফতার করা হয়, তখন তিনি দলের এবং আমার খোজ-খবর নেন। তিনি দল পরিচালায় সহায়তা করেছেন।
এর আগে শোক প্রস্তাবের আলোচনায় আরো ৩২ জন অংশ নেন।
বাংলাদেশ সময় : ২১২০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০১৩

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল