July 23, 2017, 8:54 pm | ২৩শে জুলাই, ২০১৭ ইং,রবিবার, রাত ৮:৫৪

মসজিদের মাইক অপব্যবহার বন্ধে ব্যবস্থা

Baitul_Mukarram_بيت المكرّمবায়তুল মোকাররমঢাকা জার্নাল:  মসজিদের মাইক অপব্যবহার বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার৷ এজন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে কাজে লাগানো হবে৷ আর সারা দেশে পুলিশ লিফলেট বিলির কর্মসূচি হাতে নিয়েছে৷

সাম্প্রতিক সময়ে অন্তত ২টি ঘটনায় মসজিদের মাইকে গুজব ছড়িয়ে সহিংস ঘটনা ঘটানোর প্রমাণ আছে সরকারের কাছে৷ ২৮শে ফেব্রুয়ারি জামায়াত নেতা মাওলানা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর ফাঁসির রায়ের পর তাকে চাঁদে দেখা গেছে বলে গুজব ছড়ান হয়৷ বগুড়ায় ভোররাতে মসজিদের মাইক ব্যবহার করে জামায়াত-শিবির এই গুজব প্রচার করে সাধারণ মানুষকে উত্তেজিত করে ব্যাপক তাণ্ডব চালায়৷ থানা ও পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালায়৷ হামলা চালায় পুলিশের ওপর৷ পুড়িয়ে দেয় প্রশাসনিক ভবন৷ আর এতে অনেক প্রাণহানির ঘটনা ঘটে৷

একইভাবে ১১ই এপ্রিল ফটিকছড়িতে মসজিদের মাইক ব্যবহার করে জামায়াত-শিবির ও হেফাজত কর্মীরা গুজব ছড়ায় যে মসজিদের ইমামকে ধরে নিয়ে গেছে হরতাল বিরোধী আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা৷ তার পর সেখানেও হয় ব্যাপক সহিংসতা৷ ৩ আওয়ামী লীগ কর্মীকে আটক করে কুপিয়ে হত্যা করা হয়৷

এইসব ঘটনা সরকারকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছে৷ কারণ সামনে যে কোনো দিন যুদ্ধাপরাধ মামলায় জামায়াত নেতা গোলাম আযম এবং কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে রায় দেয়া হবে৷ এই অবস্থায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ১০ হাজার লিফলেট ছাপিয়ে তা বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে৷

উপ-পুলিশ কমিশনার মাসুদুর রহমান জানান, “লিফলেটে মসজিদের মাইক অপব্যবহার যাতে না হয় সে জন্য ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানান হয়েছে৷ একই সঙ্গে কোন ধরণের গুজবে কান না দেয়ারও আহ্বান জানান হয়েছে৷”

পুলিশ সদর দফতর থেকে জানা গেছে, শুধু ঢাকা নয় সারা দেশেই পুলিশ এ নিয়ে জনসচেতনতামূলক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে৷

মাসুদুর রহমান আরও জানান, “কারুর বিরুদ্ধে মসজিদের মাইক অপব্যবহার করে গুজব ছড়ানো বা অশান্তি সৃষ্টির প্রমাণ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ আছে৷”

অন্যদিকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক মাওলানা মোহাম্মদ আফজাল বলেন, তাঁরা সারা দেশের মসজিদের ইমাম এবং মুয়াজ্জিনদের এব্যাপারে সতর্ক থাকার জন্য বলেছেন৷ মসজিদের মাইক ধর্মীয় এবং জনসেবামূলক কিছু কাজ ছাড়া ব্যবহারের সুযোগ নেই৷ আর এই মাইক ব্যবহার করে গুজব বা সহিংসতা সৃষ্টি গর্হিত অন্যায়৷ আর মসজিদের মাইক যাতে দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি ছাড়া অন্য কেউ হাতে না পায় সে ব্যবস্থা নেয়ার জন্যও বলা হয়েছে৷

তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে যারা মসজিদের মাইক ব্যবহার করে জঘন্য কাজ করেছেন, তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা উচিত৷

মাওলানা আফজাল বলেন, শুধু মাইক নয় মসজিদ মাদ্রাসা ব্যবহার করে কেউ যাতে ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে উন্মাদনা এবং জঙ্গি তৎপরতা চালাতে না পারে, সে জন্যও তারা জনসচতেনতামূলক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন৷

এদিকে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মসজিদের মাইক অপব্যবহার সম্পর্কে সবাইকে সতর্ক থাকতে বলেছেন৷ বৃহস্পতিবার তিনি আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকে বলেন, এ ব্যাপারে সাধারণ ধর্মপ্রাণ মুসলমান ও সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে হবে৷

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল