June 29, 2017, 4:37 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ৪:৩৭

জামায়াতের রাষ্ট্রদ্রোহে যুক্তরাষ্ট্রের মদদঃ সেলিম

Int20081216-Mujahidul-Selim-on-Bijoh-Dibosh-pix

শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের আয়োজিত এক আলোচনা সভায় মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, “দেশের ভিতরে ভয়ঙ্কর পরিবেশ বিরাজ করছে। আমাদের এই দেশ আজ শত্রু দ্বারা আক্রান্ত। এই শত্রু দেশ ও বিদেশের উভয়ই রয়েছে। আমেরিকা হচ্ছে বহিঃশত্রু আর জামায়াতে ইসলাম হলো দেশের শত্রু।”
সেলিম বলেন, “শুধু ভৌগলিকভাবে স্বাধীন একটি রাষ্ট্রের জন্য বাংলাদেশের জন্ম হয়নি। এদেশকে স্বাধীন করা হয়েছে পাকিস্তানের শাসন-শোষণ-নিপীড়ন থেকে বেড়িয়ে এসে একটি সমাজতান্ত্রিক দেশ গঠনের জন্য। যতোদিন এই সমাজতান্ত্রিক দেশ গঠন না হবে, ততোদিন মুক্তিযুদ্ধ চলবে।”
সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “সরকার আজ দুই নৌকায় পা দিয়েছে। সাপের মুখে চুমো দিবেন না, তাতে আমও যাবে ছালাও যাবে।”
যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোস্ত শাস্তির বিষয়ে বিভিন্ন ব্যাক্তি ও সংগঠনের ‘আন্তর্জাতিক মান বজায় ও স্বচ্চভাবে করার’ দাবির সমালোচনা করে সেলিম বলেন, “যখন নিরীহ মানুষকে নির্বাচারে হত্যা করা হয়েছিল, তখন কোথায় চিল স্বচ্ছতা? কোথায় ছিল ন্যায় বিচার? যখন  গাদাফিকে মারা হলো, সাদ্দাম হোসেনকে সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়া হল, তখন কোথায় ছিল আপনাদের মানবাধিকার কোথায় ছিল স্বচ্ছতা?”
এর আগে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হাসান তারেক শাহবাগ আন্দোলন সম্পর্কে বলেন, আমাদের এই আন্দোলনের কিছু সাফল্য অর্জিত হলেও এখনো আমাদের চূড়ান্ত বিজয়ের অনেকটা পথ বাকি রয়ে গেছে।
“সব যুদ্ধাপরাধীদের প্রাপ্য সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত ও তা কার্যকর করা এবং যুদ্ধাপরাধী ও সন্ত্রাসী সাম্প্রদায়িক সংগঠন জামাত-শিবির নিষিদ্ধ করার দাবি আদায় না করা পর্যন্ত আমাদের এই আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার বিকল্প নেই।
আলোচনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ছাত্র ইউনিয়নের বর্তমান সভাপতি এসএম শুভ, সাবেক সভাপতি মাহাবুব জামান, আনোয়ারুল হক, লুনা নূর, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুর মঈন প্রমুখ।
আলোচনা শেষে রাজু ভাস্কর্য থেকে একটি মশাল মিছিল বের করা হয়, যা শাহবাগ হয়ে আবার রাজু ভাস্কর্যে ফিরে আসে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল