June 23, 2017, 2:39 am | ২২শে জুন, ২০১৭ ইং,শুক্রবার, রাত ২:৩৯

পাবলো পিকাসো: যিনি নিজেই ‘শিল্প’

pablo-picasso_1773978bঢাকা জার্নাল: বাবা ছিলেন বড় মাপের শিল্পী৷ তাঁর ছেলে ১৩ বছর বয়সেই এমন ছবি আঁকলো যে বাবা আঁকা ছেড়ে নিজের রং তুলি তুলে দিলেন ছেলের হাতে৷ ভুল করেননি, কেননা, সেই সন্তানই বড় হয়ে হয়েছেন চিত্রশিল্প ও ভাষ্কর্যের প্রবাদ পুরুষ পাবলো পিকাসো৷

পুরো নাম : পাবলো রুইজ ই পিকাসো

জন্ম : ২৫ অক্টোবর ১৮৮১, মালাগা, স্পেন

মৃত্যু : ৮ এপ্রিল ১৯৭৩, মুজ্যাঁ, ফ্রান্স

পেশা : চিত্রশিল্পী ও ভাস্কর

বাবা : ডন খোজে রুইজ ই ব্লাস্কো

মা : মারিয়া পিকাসো ই লোপেজ

স্ত্রী : ওলগা কখলোভা (১৯১৮-৫৫)

জ্যাঁকলিন রোক (১৯৬১-৭৩)

উল্লেখযোগ্য শিল্পকর্ম : গ্যার্নিকা, দ্য উইপিং উওম্যান, ল্য ডমোঁয়াসল ডা’ভিনিও

ফ্রান্সের প্রসঙ্গে একটা প্রশ্ন প্রায়ই ওঠে, ‘আপনি প্যারিস গিয়েছিলেন, দা ভিঞ্চির ‘মোনালিসা’ দেখেছেন?’

pablo-picasso-studio-with-plaster-headকেউ স্পেনে গিয়েছিলেন শুনলে জানতে চাওয়া হয়, মাদ্রিদ গিয়েছিলেন, পিকাসোর গ্যার্নিকা দেখেছেন?’ একেবারে ভিন্নধর্মী দুটি ছবি৷ প্রথমটি ষোড়শ শতাব্দীতে আঁকা নিসর্গের পটভূমিতে এক রহস্যময় মৃদু হাসির রমণীর প্রতিকৃতি৷ দ্বিতীয়টি বিংশ শতাব্দীর, বিশাল ক্যানভাসে কিউবিক ফর্মে সাদা-কালো ও কোলাজে আঁকা যুদ্ধ বিরোধী এক ছবি৷ আধুনিক শিল্পকলা সম্পর্কে উদাসীন মানুষও আর কিছু না জানুক নিঃসন্দেহে পিকাসো নামটি অন্তত জানেন৷ শিল্পকলার ইতিহাসে বিংশ শতাব্দির খুব বড় মাপের এই শিল্পীর মতো জীবিদ্দশায়ই আর কেউ এত খ্যতি ও জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেননি৷

PicassoDoraMaarশৈশব থেকেই শিল্পকলার জগত তাঁকে চেনে ‘বিস্ময় শিশু’ হিসেবে৷ বাবা ছিলেন অঙ্কন শিল্পের শিক্ষক৷ তাঁর কাছেই পিকাসোর ছবি আঁকায় হাতে খড়ি৷ ছবি আঁকা শুরুর কয়েক বছরের মধ্যে এমন সিদ্ধহস্ত হয়ে ওঠেন বয়স ১৩ হতে না হতেই বাবাকেও ছাড়িয়ে যান৷ ছেলের প্রতিভায় বিস্মিত হয়ে ছবি আঁকাই ছেড়ে দেন বাবা এবং নিজের সব রং, তুলি দিয়ে দেন ছেলেকে!

বিশ শতকের প্রথম দিকে পিকাসো চলে আসেন প্যারিসে৷ নিঁখুত বাস্তবধর্মী চিত্রকলার গণ্ডি ছাড়িয়ে শিল্পকলার বিভিন্ন মাধ্যম, শিল্পশৈলি ও আধুনিক চিন্তাধারার রুপ স্থান পায় তাঁর শিল্পকর্মে৷ কিউবিজম, কোলাজ ছাড়াও বহু শিল্পশৈলির প্রত্যক্ষ প্রমাণ পিকাসো৷ আধুনিক শিল্পকলার অঙ্গনে তেলচিত্র, অঙ্কনচিত্র, গ্রাফিকস থেকে শুরু করে ভাষ্কর্য, মৃৎশিল্প, মঞ্চের পটভূমি- সবকিছুতেই তিনি এনেছিলেন বিরাট পরিবর্তন৷

Picasso_Fine_Art_desktop_ml0010১৯৩৭ সালে প্যরিসের বিশ্ব শিল্প মেলায় স্পেনের প্যাভিলিয়নে প্রদর্শিত হয় ‘গ্যার্নিকা’৷ জার্মানদের বোমা বর্ষনে স্পেনের বিদ্ধস্ত গ্রাম গ্যার্নিকা’র দুঃখ্-দুর্দশা ও বেদনার এক গভীর প্রতিফলন৷

৪০ বছর আগে ৮ই এপ্রিল ৯১ বছর বয়সে চিরবিদায় নেন আধুনিক শিল্পকলার মহিরুহ পাবলো পিকাসো৷ মৃত্যুর আগ পর্যন্ত ছবি এঁকেছেন, সব সময় বলতেন, ‘চিত্রকলার অনেককিছুই শেখা হলো না৷’

সূত্র: ওয়েবসাইট

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল