June 23, 2017, 7:42 pm | ২৩শে জুন, ২০১৭ ইং,শুক্রবার, সন্ধ্যা ৭:৪২

প্যাসিফিক মেরিন ইটভাটাকে কোটি টাকা জরিমানা

BG-KARNOFULI-capital-dredgi20130411054035চট্টগ্রাম: কর্ণফুলী নদী দূষণের দায়ে প্যাসিফিক মেরিন সার্ভিস অটো ব্রিকসকে এক কোটি টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। একই সঙ্গে ইটভাটাটির উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (মনিটরিং এন্ড এনফোর্সম্যান্ট) মো. আলমগীর এ জরিমানা করেন। এসময় তিনি কর্ণফুলী নদীর নাব্যতা রক্ষায় ড্রেজিং কার্যক্রমে মনিটরিং জোরদার করার নির্দেশ দিয়েছেন।

চট্টগ্রামের প্রধান এবং জাহাজ চলাচলের জন্য অত্যন্ত গরুত্বপূর্ণ কর্ণফুলীর নদীর তীর ঘেঁষে তৃতীয় কর্ণফুলী সেতুর খুব কাছে ইটভাটা স্থাপন করে পরিবেশ দূষণ, নাব্যতা বিঘ্ন এবং জীববৈচিত্র্য ধ্বংসের জন্য প্যাসিফিক মেরিন সার্ভিস অটো ব্রিকস-কে এ জরিমানা করা হয়েছে।

এছাড়া আইন অমান্য করে সিটি কর্পোরেশনের ৩ কিলোমিটার এলাকার মধ্যে ইটভাটা স্থাপন করায় উৎপাদান কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,  পরিবেশ অধিদপ্তর পরিচালক (এনফোর্সমন্ট) মো. আলমগীর এবং উপ-পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান আখন্দ কর্ণফুলী নদীর চ্যানেলে মালয়েশিয়ান মেরিটাইম এবং ড্রেজিং কনসালটেশন কোম্পানীর ড্রেজিং কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

কর্ণফুলী ড্রেজিং কার্যক্রম নিয়ে বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ০৮ এপ্রিল তারা সরেজমিন প্রকল্পটি পরিদর্শন করেন। এসময় সংশ্লিষ্ট সকলের সঙ্গে আলোচনা করেন তারা। এরপর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার জন্য বলেন প্যাসিফিক মেরিন অটো ব্রিকসের ম্যানেজিং পার্টনার আবু সালে মো.জাফর ও কর্ণফুলী ক্যাপিটাল ড্রেজিং প্রকল্পের পরিচালক খাদেমুল বাশারকে।

খাদেমুল বাশার প্রকল্পের লে-আউট প্ল্যান, নদীর তীরের এ্যামব্যাংকমেন্ট এবং ওয়ার্কওয়ে নির্মাণ এবং নদীর নাব্যতা সংক্রান্ত বিষয়ে কাগজপত্র উপস্থাপন করেন। দাখিলকৃত কাগজপত্র আরো পর্যালোচনার প্রয়োজন থাকায় এ বিষয়ে আবারো ডাকা হবে বলে জানানো জয়।

তবে ড্রেজিং কার্যক্রম পরিচালনায় যাতে নদীর নাব্যতা ও নদীর তলদেশের কোনরূপ ক্ষতি না হয় এবং তৃতীয় কর্ণফুলী সেতুর পিলার সংলগ্ন এলাকায় যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি ও সম্মতি ছাড়া খনন কার্য থেকে বিরত থাকার জন্য প্রকল্প পরিচালককে মনিটরিং জোরদার করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়।

পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আলমগীর বাংলানিউজকে জানান, কর্ণফুলী নদীর তীরে মাটি স্তুপ করা, কর্মরত শ্রমিকদের নিরাপত্তা না নেয়া, জমিতে বৃক্ষরোপন না করা এবং সিটি কর্পোরেশনের ভেতর ইটভাটা করে পরিবেশ দূষণের দায়ে প্যাসিফিক মেরিন ব্রিকসকে এক কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশপাশি ইটভাটাটি বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়।

তিনি বলেন, “ বাংলাদেশের নদীগুলো রক্ষায় আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। এজন্য  আমাদের সবাইকে সচেতন হওয়া দরকার।”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল