June 23, 2017, 2:33 am | ২২শে জুন, ২০১৭ ইং,শুক্রবার, রাত ২:৩৩

১৩ দিনের রিমান্ডে মাহমুদুর রহমান

solayman2020_1365656770_1-m-rঢাকা জার্নাল: দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে ১৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।এর মধ্যে বিচারপতির স্কাইপি সংলাপ দৈনিক আমার দেশে প্রকাশের অভিযোগে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় সাত দিন এবং গাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশকে হত্যাচেষ্টায় আরো দুটি মামলায় তিন দিন করে ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে।


পুলিশ গ্রেফতারকৃত মাহমুদুর রহমানকে তিন মামলায় মোট ২৪ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকার অতিরিক্ত সিএমএম সহিদুল ইসলামের আদালতে এ রিমান্ড শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত তিন মামলায় ১৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

শুনানি শুরুর আগে আইনজীবীরা ওকালতনামায় মাহমুদুর রহমানের
স্বাক্ষর চাইলে তিনি তা দিতে অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, “কারণ আমার কোনো আইনজীবীর প্রয়োজন নেই। আমি এই আদালতের আদালতের ওপর আস্থা রাখি না।”

এদিকে, মামলার প্রসিকিউটর আবদুল্লাহ আবু ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ২৪ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে মাহমুদুর রহমান নিজেই নিজের শুনানি শুরু করেন।

মাহমুদুর আদালতকে বলেন, “প্রসিকিউটর সর্বৈব মিথ্যাচার করছেন।” এতে আদালতে হৈচৈ শুরু হয়। এরপর আদালত বলেন, “আদালতের ভাষায় কথা বলুন।” প্রতি উত্তরে মাহমুদুর বলেন, “আমার দেশ আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সম্পর্কে কোনো কটূক্তি করেনি। মাননীয় বিচারপতি ও বেলজিয়ামের নাগরিক জিয়াউদ্দিনের স্কাইপির কথোপকথন-সংলাপ কোট-আনকোট ছেপেছে আমার দেশ।”

দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে ডিবি অফিস থেকে আমার দেশ সম্পাদককে আদালতে নেওয়া হয়। এর আগে সকাল ৯টায় বিচারপতির স্কাইপি সংলাপ দৈনিক আমার দেশে প্রকাশের অভিযোগে মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এছাড়া মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে ধর্মীয় উস্কানি দেওয়া, ব্লগারদের লেখা ইন্টারনেট থেকে নিয়ে দৈনিক আমার দেশে প্রকাশ করে সাধারণ মানুষের ধর্মীয় অনভূতিতে আঘাত, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে দৈনিকটিতে আদালত, সরকার, ট্রাইব্যুনালসহ নানা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে লেখালেখির অভিযোগ রয়েছে।

গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর ঢাকার মুখ্য মহানগর ম্যাজিস্ট্রেটের (সিএমএম) আদালতে রাষ্ট্রদ্রোহ ও সাইবার অপরাধ আইনে মামলাটি দায়ের করেন আর্ন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর সাইদুর রহমান। মুখ্য মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট এসএম আশিকুর রহমান মামলাটি এজাহার হিসেব গণ্য করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নির্দেশ দেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতেই বৃহস্পতিবার মাহমুদুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়।
সকাল ৯টায় রাজধানীর কারওয়ানবাজারের আমার দেশ পত্রিকা অফিস থেকে মাহমুদুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার এড়াতে তিনি এখানে দীর্ঘদিন ধরে অবস্থান করছিলেন।

ডিবি ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা মহানগর (উত্তর) গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার মোল্লা নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে ডিবির বিশেষ একটি দল মাহমুদুর রহমানের অফিসে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারের পর তাকে মিন্টো রোডে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল