June 29, 2017, 9:52 pm | ২৯শে জুন, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ৯:৫২

ধর্ষণ মামলার দুই আসামি সাফাত ও সাদমান ডিবিতে

ঢাকা জার্নাল : রাজধানীর বনানীতে দুই বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় গ্রেপ্তার শাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফকে আজ শুক্রবার সকালে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) কার্যালয়ে আনা হয়েছে।
ডিবি কার্যালয় থেকে শাফাত ও সাদমানকে আজ ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে নেওয়া হতে পারে।
ডিবির উপকমিশনার (উত্তর) শেখ নাজমুল আলম বলেন, সিলেটে গ্রেপ্তার হওয়া শাফাত ও সাদমানকে ডিবি কার্যালয়ে আনা হয়েছে। আজ যেকোনো সময় তাঁদের আদালতে নেওয়া হতে পারে।
শাফাত ও সাদমানকে কখন আদালতে নেওয়া হবে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হবে, এ ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানান শেখ নাজমুল আলম।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১১ মে)  রাতে সিলেটে গ্রেপ্তার হন শাফাত ও সাদমান। পুলিশ সদর দপ্তরের একটি বিশেষ দল রাত ৯টার দিকে জালালাবাদের একটি বাড়ি থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করে। জালালাবাদের একটি বাড়িতে তাঁরা লুকিয়ে ছিলেন। পুলিশের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-গোপনীয়) মো. মনিরুজ্জামান এসব তথ্য জানান।

গত ৬ মে বনানী থানায় পাঁচজনকে আসামি করে একটি ধর্ষণ মামলা করেন ধর্ষণের স্বীকার হওয়া একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, এক পরিচিত ব্যক্তির জন্মদিনের পার্টিতে অংশ নিতে গিয়ে ধর্ষণের স্বীকার হন তাঁরা। বনানীর রেইনট্রি হোটেলের দুটি কক্ষে আটকে রেখে তাঁদের ধর্ষণ করা হয়।

মামলার এক আসামি শাফাত আহমেদ, যাঁর বাবা আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ। অন্য আসামিরা হলেন নাঈম আশরাফ, সাদমান সাকিফ, শাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল ও তাঁর দেহরক্ষী আবুল কালাম আজাদ।

দুই বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। বুধবার রাতে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, বনানী থানার পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় ৬ মে নিয়মিত মামলা নেয়।

রাজধানীর বনানীতে দুই বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় গ্রেপ্তার শাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফকে আজ শুক্রবার সকালে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) কার্যালয়ে আনা হয়েছে।
ডিবি কার্যালয় থেকে শাফাত ও সাদমানকে আজ ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে নেওয়া হতে পারে।
ডিবির উপকমিশনার (উত্তর) শেখ নাজমুল আলম বলেন, সিলেটে গ্রেপ্তার হওয়া শাফাত ও সাদমানকে ডিবি কার্যালয়ে আনা হয়েছে। আজ যেকোনো সময় তাঁদের আদালতে নেওয়া হতে পারে।
শাফাত ও সাদমানকে কখন আদালতে নেওয়া হবে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হবে, এ ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানান শেখ নাজমুল আলম।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১১ মে) রাতে সিলেটে গ্রেপ্তার হন শাফাত ও সাদমান। পুলিশ সদর দপ্তরের একটি বিশেষ দল রাত ৯টার দিকে জালালাবাদের একটি বাড়ি থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করে। জালালাবাদের একটি বাড়িতে তাঁরা লুকিয়ে ছিলেন। পুলিশের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-গোপনীয়) মো. মনিরুজ্জামান প্রথম আলোকে এসব তথ্য জানান।

গত ৬ মে বনানী থানায় পাঁচজনকে আসামি করে একটি ধর্ষণ মামলা করেন ধর্ষণের স্বীকার হওয়া একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, এক পরিচিত ব্যক্তির জন্মদিনের পার্টিতে অংশ নিতে গিয়ে ধর্ষণের স্বীকার হন তাঁরা। বনানীর রেইনট্রি হোটেলের দুটি কক্ষে আটকে রেখে তাঁদের ধর্ষণ করা হয়।

মামলার এক আসামি শাফাত আহমেদ, যাঁর বাবা আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ। অন্য আসামিরা হলেন নাঈম আশরাফ, সাদমান সাকিফ, শাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল ও তাঁর দেহরক্ষী আবুল কালাম আজাদ।

দুই বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। বুধবার রাতে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, বনানী থানার পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় ৬ মে নিয়মিত মামলা নেয়।

ঢাকা জার্নাল, মে ১২, ২০১৬।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল