July 22, 2017, 8:31 pm | ২২শে জুলাই, ২০১৭ ইং,শনিবার, রাত ৮:৩১

শেরপুরে বন্যহাতির আক্রমণে নিহত ৩, শতাধিক হাতির অবস্থান

sherpur-elephantঢাকা জার্নাল: শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলায় ভারতীয় বন্যহাতির আক্রমণে আবারো তিনজন নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১টার মধ্যে উপজেলার পানবর ও দুধনই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শতাধিক হাতির দু’টি পাল এখনো ওই দুই এলাকায়ই অবস্থান করছে। ফলে আতঙ্ক বিরাজ করছে জনগণের মধ্যে।

নিহতরা হলেন-ঝিনাইগাতী উপজেলার পানবর গ্রামের জহুরুল (৪৫), সুন্নত আলীর স্ত্রী আয়তুন নেছা বেলু মাও (৩২) ও দুধনই গ্রামের আয়তুল্লার ছেলে আবদুল হাই (৫৫)।

স্থানীয়রা  জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শতাধিক বন্যহাতির দল দুইভাগে বিভক্ত হয়ে আন্তর্জাতিক সীমান্ত পেরিয়ে ঝিনাইগাতি উপজেলার পানবর ও দুধনই এলাকায় প্রবেশ করে। সন্ধ্যায় হাতির দল প্রায় ১৫ হেক্টর জমির ধান নষ্ট করে ও ঘর বাড়ি পিষিয়ে দেয়। খবর পেয়ে শত শত মানুষ লাঠিসোটা ও ঢাকঢোল পিটিয়ে হাতি তাড়ানোর চেষ্টা করতে থাকে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে  হঠাৎ হাতির দল গ্রামবাসীর ওপর চড়াও হয়। প্রাণে বাঁচতে স্থানীয়রা দৌঁড়াতে থাকে। এসময় কৃষক জহুরুল মাটিতে পড়ে গেলে হাতির দল তাকে পিষ্ট করে মেরে ফেলে।

অন্যদিকে, হাতির দল বাড়িতে প্রবেশ করে ঘরের দরজা ভেঙে টেনে-হিঁচরে আবদুল হাই ও আয়তুন নেছাকে মেরে ফেলে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রায় শতাধিক হাতির দলটি এলাকাতেই অবস্থান করছে।

ওই দুই গ্রামের জনগণ রাতে পাশের গ্রামে নিরাপদে আশ্রয় নেন। স্থানীয়দের নিয়ে বন্য হাতির তাণ্ডব মোকাবেলা করতে না পারায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে রাতেই সেখানে ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের পাঠানো হয়।

সকালে ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান  জানান, বন্য হাতির দল পার্শ্ববর্তী ছোট গজনী এলাকায় এখন অবস্থান নিয়েছে।

উল্লেখ্য, এই নিয়ে দেড় মাসের ব্যবধানে সীমান্তবর্তী ঝিনাইগাতী ও শ্রীবরদী উপজেলায় বন্য হাতির আক্রমণে সাতজনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটলো।

ঢাকা জার্নাল, অক্টোবর ১৪, ২০১৬।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল