July 25, 2017, 12:41 am | ২৪শে জুলাই, ২০১৭ ইং,মঙ্গলবার, রাত ১২:৪১

ভিনগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্বের সন্ধানে ।। ওবায়দুর রহমান


ঢাকা জার্নাল :
জ্ঞান-বিজ্ঞানের আলোকে একটি প্রশ্ন যা প্রায়ই প্রতিটি মানুষের মনকে আলোড়িত করে তা হলো, এই মহাবিশ্বে পৃথিবী ছাড়া আর অন্য কোথাও প্রাণের অস্তিত্ত্ব আছে কিনা। ভিন্যগ্রহ বা উপগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব নিয়ে আজ পর্যন্ত বহু গবেষণা হয়েছে, লেখা হয়েছে অসংখ্য বই, তৈরি হয়েছে সিনেমা, ডকুমেন্টারী, টিভি প্রোগ্রাম।Obaidur Rahman book 2

কিন্তু এখন পর্যন্ত মহাবিশ্বে পৃথিবী ছাড়া প্রাণের অস্তিত্ত্ব আছে এমন অন্য কোন গ্রহের সন্ধান বিজ্ঞানীরা এখনও সুনিশ্চিতভাবে খুঁজে পান নি। যদিও এ ব্যাপারে অধিকাংশ গবেষণা পাশ্চাত্য কেন্দ্রিক, তবে বাংলাদেশেও মহাকাশ বিজ্ঞানের এ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি নিয়ে আগ্রহের কোন কমতি নেই। আর তারই প্রেক্ষিতে মহাবিশ্বে ভিনগ্রহ ও উপগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব থাকার ব্যাপক সম্ভাবনার বিস্তারিত নিয়ে সম্প্রতি বের হয়েছে তরুণ বাংলাদেশি লেখক ওবায়দুর রহমানের নতুন বই “দ্যা সার্চ ফর একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ ইন দি ইউনিভার্স” (The search for extra terrestrial life in the Universe by Obaidur Rahman) ।

ইংরেজি ভাষায় লেখা এই বইটির মাধ্যমে লেখক ওবায়দুর রহমান বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোন থেকে মূলত তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন, কেন মহাবিশ্বে পৃথিবী ছাড়া অন্য গ্রহে প্রাণের সম্ভাবনা থাকাটা একই সাথে অত্যন্ত যুক্তিসংগত এবং স্বাভাবিক।

“দ্যা সার্চ ফর একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ ইন দি ইউনিভার্স” বইটিতে রয়েছে পাঁচটি অধ্যায়, যার মাধ্যমে লেখক মহাবিশ্বে প্রাণের সম্ভাবনা সংশ্লিষ্ট বহু তাত্ত্বিক এবং গুরুত্বপূর্ণ বিষয় অত্যন্ত প্রজ্ঞা ও সাবলিল ভাবে তুলে ধরেছেন। মূলত পৃথিবীর বাইরে মহাবিশ্বে জীবনের উপস্থিতি যে একটি শক্তিশালী বৈজ্ঞানিক সম্ভাবনা তার বিভিন্ন দিক লেখক ওবায়দুর রহমান তার অনুসন্ধানি লেখনির মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। মহাবিশ্ব কেন্দ্রিক বহু বিষয় এ বইটিতে এসেছে, যেমন পৃথিবী ছাড়া আমাদের সৌরজগতের ভিতরের অন্যান্য গ্রহ ও উপগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব থাকার সম্ভাবনা, আমাদের সৌরজগতের বাইরে পৃথিবীর মত প্রাণের অনুকুল পরিবেশ ও আবহাওয়া আছে এমন গ্রহ থাকার সম্ভাবনা এবং সেই সম্ভাবনাময় গ্রহগুলোর বিস্তারিত বিবরণ। বইটিতে আরও আছে আমাদের পৃথিবীতে কিভাবে প্রাণের আর্বিভাব হলো, এবং সে ব্যাপারে ইতিহাসগতভাবে বিস্তারিত ব্যাক্ষা যা থেকে পাঠক মূলত ধারণা পাবে মহাবিশ্বের অন্য গ্রহতে কিভাবে প্রাণের উদ্ভব ও বিস্তারন হতে পারে, এবং এ তথ্যগুলো সহ আরো অনেক বৈচিত্রময় ও রোমাঞ্চকর বিষয়।

লেখক ওবায়দুর রহমান তার সুলেখনির মাধ্যমে ভিনগ্রহে প্রাণের অস্তিত্ত্ব থাকার সম্ভাবনার সাথে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন একাডেমিক বিষয় যেমন পদার্থবিদ্যা, জ্যোর্তিবিদ্যা, জীববিদ্যা, রসায়ন, ইতিহাস, ধর্ম, জীবনের বিবর্তন ও মহাকাশ বিজ্ঞান সহ বেশ কিছু জটিল বিষয়, অত্যন্ত দক্ষতার সাথে ও সাবলিল ভাবে, বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোন থেকে পাঠকের কাছে উপস্থাপন করেছেন। অতিরিক্ত স্থলজ জীবন বা একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ এর প্রেক্ষিতে বইটিতে উঠে এসেছে সেই রহস্যময় ইউ এফ ও (UFO) বা অশনাক্ত উড়ন্ত বস্তুর মতো রোমাঞ্চকর ঘটনাগুলোর ব্যাক্ষা। লেখক এর সাথে আরও উপস্থাপন করেছেন প্রাচীন মহাকাশচারী তত্ত্ব বা এনসিয়েন্ট এস্ট্রোনাট থিয়োরির মত বিষয়ের বিজ্ঞান সম্মত বিশ্লেষণ। লেখক ওবায়দুর রহমান তার “দ্যা সার্চ ফর একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ ইন দি ইউনিভার্স” বইটিতে আরও তুলে ধরেছেন আমাদের মহাবিশ্বের বিবর্তনের ইতিহাস এবং সে প্রেক্ষিতে কেন পৃথিবী ছাড়া মহাবিশ্বের আরও বহু প্রান্তে প্রাণের উৎস এবং তার বিবর্তনের সম্ভাবনা যে থাকা স্বাভাবিক, তার যুক্তিসংগত ব্যাখ্যা ও বিশ্লেষণ। লেখক তার এই বইটিতে মহাবিশ্বে প্রাণের অস্তিত্ত্ব খোঁজার বৈজ্ঞানিক প্রচেষ্টা নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন বিখ্যাত সংস্থার, যেমন যুক্তরাষ্ট্রের নাসা (ঘঅঝঅ) এবং সেটি (SETI), বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেছেন। বিবরণ দিয়েছেন রেডিও টেলিস্কোপ ও স্পেস প্রোবদের কথা যাদের মাধ্যমে মহাবিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রাণের অস্তিত্ত্ব সম্বন্ধে শুধু জানাই যাবে তা নয় এর সাথে পৃথিবীর বাইরে যদি অন্য কোন সভ্যতা খুঁজে পাওয়া যায় তাহলে তাদের সাথেও কিভাবে যোগাযোগ করা সম্ভব হবে সে সম্বন্ধেও বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন তার এই বইটিতে।

গত শতাব্দির আগ থেকে বিজ্ঞানিরা নিরলস ভাবে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন দূর মহাবিশ্বের অন্য গ্রহ/ উপগ্রহে জীবনের অথবা অন্য কোন সভ্যতার সন্ধানে। যদিও এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত নির্দিষ্ট কোন উত্তর বা প্রমাণ মানুষের কাছে এসে পৌঁছেনি। তবে অনেকের মতই লেখক বায়দুর রহমান মনে করেন নিশ্চিতভাবে যে পৃথিবীর বাইরে প্রাণের অ¯িত্ত্ব থাকার সম্ভাবনা অত্যন্ত দৃঢ়। নিঃসন্দেহে এই বইয়ের মাধ্যমে তার এ সংক্রান্ত বিশ্লেষণগুলো পাঠককে মহাবিশ্বে প্রাণের অস্তিত্ত্ব সম্পর্কে অধির আগ্রহি করে তুলবে।

লেখক তার এ বইয়ের মাধ্যমে মহাবিশ্বে অতিরিক্ত স্থলজ জীবন বা একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ সংক্রান্ত প্রাসঙ্গিক অনেক বিষয় নিয়ে বইটি লিখেছেন, যা তার এ বিষয়ে নিবেদিত গবেষণার এক বহিঃপ্রকাশ। বিগ ব্যাং তত্ত্ব থেকে মহাবিশ্বের বিস্তৃতি এবং পৃথিবীতে জীবনের বিবর্তন, সবকিছুই এসেছে লেখক ওবায়দুর রহমানের অনন্য এই বইটিতে। অত্যন্ত তথ্যপূর্ণ এবং মহাকাশ বিজ্ঞানের বিস্ময়কর সব ঘটনাবলী নিয়ে লেখা এই বইটি পাঠককে নিশ্চিতভাবে এই বিষয়ে, একই সাথে, ব্যাপক ভাবে অবগত ও আলোকিত করবে। সহজ পাঠ্য এই বইটি পড়লে মহাবিশ্বে পৃথিবীর বাইরে প্রাণের অস্তিত্ত্বের সম্ভাবনা নিয়ে পাঠক অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পারবেন, যা বৈজ্ঞানিক ও মানবিক দৃষ্টিকোন থেকে পাঠককে অন্য গ্রহে প্রাণের সম্ভাবনা সম্পর্কে অনেক দক্ষতার সাথে অবগত করতে পারবে। লেখক ওবায়দুর রহমানের আশা যে তার এ বই “দ্যা সার্চ ফর একস্ট্রা টেরেসট্রিয়াল লাইফ ইন দি ইউনিভার্স” পাঠকদের কাছে সমাদৃত হবে। বইটি লেখকের তৃতীয় বই এবং বের করেছে স্লীক পাবলিকেশন্স (Sleek Publications)।

ঢাকা জার্নাল, আগস্ট ১৯, ২০১৬।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল