June 28, 2017, 11:36 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বুধবার, সকাল ১১:৩৬

‘সরকার যুদ্ধাপরাধীদের ব্যাপারে নমনীয়তা দেখাচ্ছে’

jhakabadgeঢাকা জার্নাল: বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি’র পলিটব্যুরো সদস্য হায়দার আকবর খান রন বলেছেন, “সরকার স্বাধীনতা বিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের ব্যাপারে নমনীয়তা দেখাচ্ছে৷ মনে হচ্ছে সরকার অশুভ শক্তির কাছে আত্মসমর্পণ করছে৷ আর এসব করে আওয়ামী লীগ যেমন ডুববে তেমনি দেশকে অন্ধকারে দিকে নিয়ে যাবে৷”

এই বর্ষীয়ান নেতা বলেন, এখনো সময় আছে সরকারের সঠিক পথে এগোবার৷ নয়ত অশুভ শক্তি তাকে গিলে খাবে৷ সরকার হেফাজতে ইসলামের দাবিগুলো মানতে শুরু করছে৷ সংবাদ মাধ্যমে খবর বেরিয়েছে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখেই আইন প্রণয়ন করতে যাচ্ছে সরকার৷ জামায়াত-শিবিরকে নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে এখনো কোনো পদক্ষেপ নেয়নি তারা৷

বরং তারা তাদের সহিংতা আর নাশকতার মাধ্যমে যুদ্ধপরাধীদের বিচার বন্ধের তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে আর উল্টোপাল্টা অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করছে ব্লগারদের বলে মন্তব্য করেন রন।

‘এই যখন পরিস্থিতি তখন কোন দিকে যাচ্ছে দেশ’ প্রশ্নে হায়দার আকবর খান রন বলেন, “জামায়াতকে নিয়ে সরকারের অবস্থান স্পষ্ট নয়৷ আর সরকার তার রাষ্ট্রশক্তি এবং জনশক্তি দিয়ে জামায়াতের সহিংতার বিরুদ্ধে কার্যকর অবস্থান নিতে ব্যর্থ হয়েছে৷ এজন্য নেতৃত্বের অযোগ্যতা এবং বিভিন্ন পর্যায়ে দুর্নীতি দায়ী৷ তারা লুণ্ঠিত সম্পদ রক্ষায় এখন জামায়াতকে ছাড় দিয়ে চলেছে৷”

রন বলেন, “ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত কোনোভাবেই কাম্য নয়৷ সেটা মেনেও নেয়া যায় না৷ কিন্তু যে ব্লগারদের এই অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ স্পষ্ট নয়৷”

“হেফাজতে ইসলাম তালিকা দেবে আর সরকার সে অনুযায়ী গ্রেপ্তার করবে – তা মেনে নেয়া যায় না৷ কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া কাউকে গ্রেপ্তার করা যায় না৷ কিন্তু সরকার মৌলবাদীদের চাপে ঠিক সেই কাজটাই করছে৷ বর্তমানে শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চের বিরুদ্ধেও অবস্থান নিচ্ছে সরকার, যা স্বাভাবিকভাবেই উৎসাহিত করছে জামায়াতকে”৷- যোগ করেন তিনি।

তিনি বলেন “শুধু তাই নয় সাঈদীর মুক্তির দাবির পক্ষেও যাচ্ছে সরকার৷ সরকারের সাম্প্রতিক এই চরিত্র এখন প্রশ্ন তৈরি করছে যে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জন্য তারা কতটুকু আগুয়ান৷”

রন বলেন, “দেখে শুনে মনে হচ্ছে সরকার অশুভ শক্তিকে ভয় পায়৷ তাই তারা তাদের কাছে আত্মসমর্পণ করছে৷ কিন্তু তাতে আওয়ামী লীগ তো ডুববেই, দেশের মানুষকেও ডোবাবে৷”

তিনি বলেন, সরকারে এখন অশুভ শক্তির এক ধরণের গ্রাস লক্ষ্য করা যাচ্ছে৷ কিন্তু এখনই যদি সরকার তা না বুঝতে পারে, যদি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, মতপ্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষে এবং সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান না নেয়, তাহলে অশুভ শক্তির গ্রাস থেকে কেউ বাঁচবে না৷

তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, জামায়াত সন্ত্রাসী দল, কিন্তু দেশের মানুষের বিরুদ্ধে তারা যুদ্ধ করার শক্তি রাখে না৷ তাই সরকারকে ভয় ছেড়ে মানুষের ওপর আস্থা রাখতে হবে৷ সূত্র: বিবিসি

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল