January 20, 2017, 5:32 am | ১৯শে জানুয়ারি, ২০১৭ ইং,শুক্রবার, ভোর ৫:৩২

জাতিসংঘের বিশ্ব তথ্যসমাজ পুরষ্কার পেল বাংলাদেশ

bdঢাকা জার্নাল : জাতিসংঘের তথ্যসমাজ বিষয়ক ‘বিশ্ব সম্মেলন পুরষ্কার-২০১৬’ অর্জন করেছে বাংলাদেশি বেসরকারি সংস্থা বিএনএনআরসি (বাংলাদেশ এনজিওস নেটওয়ার্ক ফর রেডিও অ্যান্ড কমিউনিকেশন)।

জেনেভা কর্ম পরিকল্পনা অনুসারে ২০১২ সাল থেকে ১৮টি বিভাগে এ পুরস্কার প্রবর্তিত হয়। কর্মধারা ৯-এর গণমাধ্যম বিভাগে এবছর সেরা পুরস্কারটি জিতে নেয় বাংলাদেশি সংস্থাটি।

রোববার (১৫ মে) তথ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গণমাধ্যমে নারী উন্নয়নকে সামনে রেখে এ পুরস্কার বিজয়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ।

জেনেভোয় বিএনএনআরসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এএইচএম বজলুর রহমান গত ৩ মে ‘ওয়াল্র্ড সামিট অন দ্য ইনফরমেশন সোসাইটি-২০১৬’ পুরস্কার গ্রহণ করেন।

দেশে ফিরে বজলুর রহমান সচিবালয়ে তথ্যসচিবের সাথে সাক্ষাতের সময় তথ্যসচিব বলেন, এই পুরস্কারের মাধ্যমে আমাদের কাজ বিশ্বসভায় স্বীকৃতি পেল। শুধু বিএনএনআরসি’র কর্মীবৃন্দের নয়, এই পুরস্কার বাংলাদেশের ১৬টি কমিউনিটি রেডিওতে কর্মরত ৬০ জন যুবা নারী সাংবাদিকের, যারা গণমাধ্যমে ‘কন্ঠহীনের কণ্ঠস্বর’ তুলে আনার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন।

“প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশে কমিউনিটি রেডিও’র প্রবর্তক, এটি তার চিরোজ্জ্বল অবদানের একটি অনন্য আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি।”

বিএনএনআরসি’র ‘কমিউনিটি মিডিয়া ও সাংবাদিকতায় যুব নারী- বাংলাদেশের গ্রামীণ  সম্প্রচার সাংবাদিকতায়  নতুন যুগের উন্মেষ’ প্রকল্পটি শুধুমাত্র সর্বাধিক ভোট পায়নি বরং ৫টি সর্বোচ্চ ভোট প্রাপ্ত প্রকল্পগুলোর মধ্যেও প্রথম স্থান অর্জন করেছে।

প্রতিযোগিতায় বাছাইকৃত ৩১১টি প্রকল্পে ২ লাখ ৪৫ হাজার সদস্য ভোট প্রদান করেছেন, যার মধ্য থেকে ১৮টি প্রকল্প চুড়ান্তভাবে বিজয়ী ও ৭০টি প্রকল্প রানারস-আপ ঘোষিত হয়।

২০১৩ থেকে ২০১৫ সালে সম্পন্ন এই প্রকল্পের আওতায় ৩টি ব্যাচে বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলে ৬০ জন নারী সাংবাদিক বিএনএনআরসি’র তত্ত্বাবধানে সম্প্রচার সাংবাদিকতাসহ গণমাধ্যমের বিভিন্ন শাখায় নিবিড় প্রশিক্ষণ নেন ও কমিউনিটি রেডিও ও স্থানীয় সংবাদপত্রে সাংবাদিকতায় নিয়োজিত হন।

ফেলোশিপ কার্যক্রমের আওতায় নারী ও শিশুস্বাস্থ্য, বাল্যবিবাহ, নারীর প্রতি সহিংসতা, সামাজিক বৈষম্য ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর নানাবিধ দাবী দাওয়া, বঞ্চনা ও অধিকারের কথা নিয়ে তারা ৮০০ রেডিও অনুষ্ঠান প্রযোজনা ও ৫০০ ফিচারধর্মী প্রতিবেদন স্থানীয় সংবাদপত্রে প্রকাশ করেন।

বাংলাদেশ সময়:

এমআইএইচ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল