July 23, 2017, 8:56 pm | ২৩শে জুলাই, ২০১৭ ইং,রবিবার, রাত ৮:৫৬

মরিয়া হয়ে উঠেছে উত্তর কোরিয়া

600x450xsouth-korea.jpg.pagespeed.ic.6exbX6AvnJঢাকা জার্নাল: কথায় বলে ‘যত গর্জায় তত বর্ষায় না’৷ সবার আশা, উত্তর কোরিয়ার তর্জন-গর্জনও শেষ পর্যন্ত আস্ফালনের বেশি কিছু হবে না৷ কিন্তু সাবধানের মার নেই৷ তাই চারিদিকে সাজ সাজ রব৷

উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন একের পর পর এক হুমকি দিয়ে চলেছেন৷ সেই সঙ্গে যুদ্ধের প্রস্তুতির পথে এগিয়ে চলেছেন৷ শনিবার সে দেশ বলেছে, এবার যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি শুরু হয়ে গেল৷

দক্ষিণ কোরিয়া ও তার সামরিক সহযোগী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে যৌথ সামরিক মহড়া কোনো নতুন ঘটনা নয়৷ কিন্তু সাম্প্রতিক মহড়াকে মারাত্মক প্ররোচনা হিসেবে দেখছে পিয়ং ইয়ং৷ ফেব্রুয়ারি মাসে জাতিসংঘ আরও কড়া নিষেধাজ্ঞা চাপানোর ফলে উত্তর কোরিয়ার প্রশাসনের মন মেজাজ এমনিতেই ভালো নেই৷ তার উপর সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ মিত্র চীনও আজকাল আর তাদের তোষামোদ করছে না৷ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবেও ভেটোর বদলে সমর্থন দিয়ে বসে আছে বেইজিং৷

এই অবস্থায় মরিয়া হয়ে অ্যামেরিকার উপর হামলার হুমকি দিয়েছে উত্তর কোরিয়া৷ দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতি চুক্তি বাতিল করে হামলার প্রস্তুতিও শুরু করেছে৷ পরমাণু অস্ত্র, দূর পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র – সবই ব্যবহার করা হতে পারে, এমন হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন কিম জং উন৷

দক্ষিণ কোরিয়া ও তার মিত্র অ্যামেরিকাও এই অবস্থায় হাত গুটিয়ে বসে নেই৷ সৌলে নতুন প্রেসিডেন্ট পার্ক গুন শে বলেছেন, আক্রান্ত হলে তাঁর দেশও পাল্টা হামলা চালাবে৷ স্বয়ং কিম জং উন ও উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন পরিবারের সদস্যদের মূর্তির উপর হামলারও হুমকি দিয়েছে সৌল৷

অ্যামেরিকাও পেশিশক্তি দেখাতে প্রথমে বি টু, তারপর এফ ২২ স্টেল্থ বম্বার পাঠাচ্ছে৷ রাডারের আওতার বাইরে থেকে এই বিমান প্রায় অদৃশ্য থেকে শত্রুদের এলাকায় হামলা চালবার ক্ষমতা রাখে৷

উত্তর কোরিয়া মরিয়া হয়ে এমন আচরণ করছে, এ বিষয়ে তেমন কোনো সন্দেহ নেই৷ কিন্তু প্রতিপক্ষকে ভুল প্রমাণ করতে সে দেশ একটি হামলা চালালেও পুরোপুরি যুদ্ধ শুরু হয়ে যেতে পারে – এমন বিপদের আশঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না৷ তাই কোনো ঝুঁকি নিতে প্রস্তুত নয় আন্তর্জাতিক মহল৷

এসবি/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি)

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল