June 27, 2017, 9:34 am | ২৭শে জুন, ২০১৭ ইং,মঙ্গলবার, সকাল ৯:৩৪

‘খালেদার কার্যালয়ে গুলি করে আ’লীগের ৬ সন্ত্রাসী’

Fakhrul-bg20130401070059ঢাকা জার্নাল: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে গুলিবর্ষণের ঘটনায় সরাসরি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকেই দায়ী করলো বিএনপি।

সংবাদ সম্মেলন ডেকে দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বললেন, “রোববার রাতে তিনটি মোটরসাইকেলে আওয়ামী লীগের ৬ জন সন্ত্রাসী গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে গুলি করে।”
এ ঘটনাকে “গণতন্ত্রের প্রতি চরম আঘাত” দাবি করে তিনি বলেন, “এতে আমরা উদ্বিগ্ন-উৎকণ্ঠিত।”

একই সঙ্গে অভিযুক্ত ৬ সন্ত্রাসীর পরিচয় প্রকাশের দাবি এড়িয়ে জানিয়ে দেন, “কোন প্রশ্ন নয়, কেউ প্রশ্ন করবেন না।”

সোমবার সন্ধ্যায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের কার্যালয়ে আয়োজিত ওই সংবাদ সম্মেলনে ফখরুল বলেন, “মানুষের জীবন ও সম্পদের কোন নিরাপত্তা নেই। গুলশান ডিপ্লোম্যাটিক এলাকা। এ এলাকায় এ ধরনের ঘটনায় প্রমাণ হয়, সরকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সম্পূর্ণ ব্যর্থ।”

বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে গুলিবর্ষণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়ে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান ফখরুল।

সোমবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির সমাবেশে গাড়ি পোড়ানো ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনাতেও সরকারের মদতপুষ্ট সন্ত্রাসীরা জড়িত বলে অভিযোগ করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।

কিছু দিন ধরে পুলিশ সরাসরি আক্রমণ করছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, “গত গত ২ মার্চ থেকেই বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে এভাবে আঘাত করা হচ্ছে। বিনা উস্কানিতে রাবার বুলেট, টিয়ার শেল ছুঁড়ে উল্টো বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দেওয়া হচ্ছে। ৬ মার্চের সমাবেশেও অনুরূপ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। ১১ মার্চ তারা আর অল্পতে ক্ষ্যান্ত হয়নি। দু’টি গেট ভেঙে দলীয় কার্যালয়ের ভেতরে ঢুকে নির্যাতন চালিয়েছে। নেতাকর্মীদের আটক করে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। আজ পর্যন্ত তাদের মুক্তি দেওয়া হয়নি।”

এ সময় সকালে ঘোষিত কর্মসূচির কথা পুনর্ব্যক্ত করে তিনি জানান, চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে গুলিবর্ষণের প্রতিবাদে ৪ এপ্রিল সারাদেশে প্রতিবাদ সমাবেশ হবে। এছাড়া তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি পুনর্বহাল, আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তি দাবি, সরকারের পদত্যাগ ও গণহত্যা বন্ধের প্রতিবাদে আগামী ১০ এপ্রিল সমাবেশ হবে নয়াপল্টনে। ওই সমাবেশের প্রধান অতিথি থাকবেন খালেদা জিয়া।

সংবাদ সম্মেলনে আরো ছিলেন দলের যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি প্রমুখ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল