July 27, 2017, 10:40 pm | ২৭শে জুলাই, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ১০:৪০

কুকুরের মৃত্যু রহস্য!

dog-breed-picturesঢাকা জার্নাল: জার্মানির গ্যোটিংগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বিষয়টি বিশ্লেষণ করে দেখেছেন বড় কুকুরেরা সাধারনত ছোট কুকুরদের আগেই মারা যায়৷

তাঁরা দেখেছেন যে, কথাটা সত্যি৷ গ্রেট ডেন কি সেন্ট বার্নার্ড-এর মতো বিরাট কুকুররা বেশিদিন বাঁচে না৷ সে তুলনায় ওয়েস্টহাইল্যান্ড টেরিয়ার কি চিহুয়াহুয়া-র মতো ছোট কুকুররা অপেক্ষাকৃত বেশিদিন বাঁচে৷

বিষয়টি এমন কি গুরুত্বপূর্ণ যে তা নিয়ে গবেষণা কিংবা বিশ্লেষণ করতে হবে? এ প্রশ্ন করলে চলবে না৷ ইংরেজরা সারমেয়প্রেমী বলে পরিচিত হলেও, জার্মানরা তাদের চেয়ে কিছুমাত্র কম যায় না৷ এ দেশে পেট ডগ বা পোষ্য সারমেয়দের সংখ্যা আনুমানিক ৫০ লাখ৷ তাদের মধ্যে পেডিগ্রি ডগ বা ভালো জাতের কুকুরদের সংখ্যাই বেশি৷

ব্রিডারের কাছে গিয়ে বেশ ভালো মূল্য দিয়ে পেডিগ্রি কুকুরছানা কিনতে হয়৷ তারপর সেই কুকুরছানা বড় হয়ে পোষ্য কুকুর হয়ে ওঠে৷ সে বড় প্রিয় জিনিস, সে বড় প্রাণের জীব৷ কাজেই সে কুকুর যে কতদিন বাঁচবে, তা জানতে কুকুরের মালিকদের ইচ্ছা হবে বৈকি৷ মনে রাখতে হবে, জার্মানি এমন একটা দেশ, যেখানে এই পোষ্যদের জন্য আলাদা গোরস্তানও আছে৷

গ্যোটিংগেন-এর গবেষকরা তাদের তথ্য নিয়েছেন মার্কিন মুলুক থেকে, কেননা সেখানেই পোষ্য কুকুরদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি, চার কোটির উপর! উত্তর অ্যামেরিকার ভেটারিনারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ৭৪টি জাতের ৫০ হাজার কুকুরের খবরাখবর রক্ষিত আছে একটি ড্যাটাব্যাংকে৷ সেই ড্যাটাব্যাংক থেকেই তথ্য নিয়েছেন জার্মান গবেষকরা এবং বলছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তথ্য নাকি সহজেই ইউরোপ এবং অন্যত্র প্রযোজ্য৷

দেখা গেছে, বড় জাতের কুকুররা গড়ে পাঁচ থেকে আট বছর বাঁচে৷ ছোট জাতের কুকুররা বাঁচে গড়ে ১০ থেকে ১৪ বছর৷ জীব বিবর্তন বিশেষজ্ঞ কর্নেলিয়া ক্রাউস বলেছেন, ‘‘ছোট জাতের কুকুরদের তুলনায় বড় জাতের কুকুরগুলো স্পষ্টতই তাড়াতাড়ি বুড়িয়ে যায়৷ এটা সম্ভবত তারা তাড়াতাড়ি বড় হয় বলে৷”

ক্রাউস জানান, বড় জাতের কুকুরগুলি তিন বছরেই প্রাপ্তবয়স্ক হয়ে যায়৷ আবার মারা যায় বছর সাতেক বয়সে, যেন তাদের বয়স্ক জীবনটা ফাস্ট ফরোয়ার্ডে সম্পন্ন হয়৷ পরিসংখ্যান বলে, গ্রেট ডেন, ম্যাস্টিফ, সেন্ট বার্নার্ড-এর মতো সবচেয়ে বড় কুকুরগুলো সবচেয়ে কম বাঁচে৷ দুই কিলো ওজনের চিহুয়াহুয়ার বেশিদিন বাঁচার সম্ভাবনা ৮০ কিলো ওজনের ইংলিশ মাস্টিফের চেয়ে অনেক বেশি৷

ক্রাউস বোধহয় বিবর্তনবাদের কথা ভেবেই বলে ফেলেছেন, ব্রিডারদের কুকুরের সাইজ না ভেবে, তাদের আয়ুর কথাটা ভাবা দরকার৷ তাহলে কুকুরের মালিকরা নাকি তাদের পোষ্যদের নিয়ে অনেক বেশিদিন মজা করতে পারবেন৷

বিজ্ঞানী-গবেষকরা যে ব্যাপারটার খেয়াল করেন না, সেটা হল এই যে, সারমেয়প্রেমীরা তাদের নিজের জাতের কুকুরকেই ভালোবাসেন৷ তাদের মৃত্যুতে শোক পান, চোখের জলে ভাসেন – তা তারা সাত বছরেই যাক আর সতেরো বছরেই যাক৷

যেন ভালোবাসার জাত আছে, কিন্তু বয়স নেই৷

এঅসি/ডিজি (ডিপিএ)

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল