July 23, 2017, 8:57 pm | ২৩শে জুলাই, ২০১৭ ইং,রবিবার, রাত ৮:৫৭

‘খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না’

535_image_2612ঢাকা জার্নাল: বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা্ জিয়ার নয়, প্রধানমন্ত্রীরই শেখ হাসিনারই  বিদেশ যাওয়ার অভ্যাস আছে। এক-এগারো সরকার খালেদা জিয়াকে চাপ দিলেও তিনি দেশের বাইরে যাননি। অথচ বর্তমান প্রধানমন্ত্রী প্যারোলে বিদেশ গিয়েছিলেন। তাই পাকিস্তান বা তার পাশের কোনো রাষ্ট্রে যাওয়ার চেষ্টা তিনিই করতে পারেন। খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।”

বৃহস্পতিবার বিকেলে ১৮দলের ডাকা  হরতাল শেষে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যা্লয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

প্রসঙ্গত, বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ আয়োজিত স্বাধীনতা দিবসের আলোচনায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আর মানুষ পোড়াবেন না, গাড়ি ভাঙ্চুর করবেন না।দেশের মানুষকে শান্তিতে থাকতে দিন। আপনার প্রিয় পাকিস্তানে আপনি চলে যান।”

আটক নেতাকর্মীদের মুক্তি, মামলা প্রত্যাহার, গণহত্যা বন্ধ, তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল ও সরকারের পদত্যাগ দাবিতে দেশব্যাপী ৩৬ ঘণ্টার হরতাল পালন করে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট।

দেশবাসী স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন করেছে দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, “বৃহস্পতিবারের হরতালে সারাদেশে ১৯৩ গ্রেফতার হয়েছেন। ৩৫৭ জন আহত হয়েছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত ১ জনকে সাজা দিয়েছেন। আর মামলা হয়েছে ৯০০ জনের অধিক নেতাকর্মীর বিরু্দ্ধে।

এছাড়া বুধ ও বৃহস্পতিবার মিলিয়ে সারাদেশে ৫৭৫ জন নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। আহত হয়েছেন ৯৩৫ জন। আর ১৯৩৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালত ৬ জনকে কারাদণ্ড দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, “আওয়ামী লীগ পুরোপুরি রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে। তাই তারা ছলে বলে কৌশলে গদি রক্ষার  জন্য গণতান্ত্রিক আচরণ জলাঞ্জলি দিয়ে হিংস্র ও ভয়াবহ আচরণ করছে ।”

তিনি বলেন, “বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাকিস্তান যেতে বলা হয়েছে। এ দেশ সকলের। আর খালেদা জিয়া স্বাধীনতার ঘোষকের সহধর্মিনী।তিনি ১৯৮২ সাল থেকে গণতন্ত্র অর্জনের জন্য স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন।”

সম্প্রতি পুলিশকে দেয়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীরের ‘বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের দেখামাত্র গুলির নির্দেশ’ বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেন ফখরুল।

বিএনপি’র পরবর্তী কর্মসূচি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “সরকার যেহেতু আমাদের দাবির প্রতি এখনো শ্রদ্ধাশীল নয়, দাবিগুলো অগ্রাহ্য হয়েছে, সেহেতু ১৮ দলীয় জোটের পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে শিগগিরই কর্মসূচি জানিয়ে দেবো।”

এসএসসি পরীক্ষাকে সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোকে হরতাল না দিতে শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, “১৮দলের সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।”

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিতি ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ, সহ-দফতর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনি, কৃষিবীদ শামিমুর রহমান শামিম প্রমুখ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল