June 29, 2017, 4:27 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ৪:২৭

যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়ার যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা

North Korean soldiers attend an official ceremony at the Kim Il-Sung stadium in Pyongyangঢাকা জার্নাল: যুদ্ধ-যুদ্ধ খেলা ভিডিও গেমেই বেশি হয়৷ যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়া একই খেলায় মেতেছে সত্যিকারের অস্ত্র আর হুমকি-পাল্টা হুমকি দিয়ে৷ বিষয়টি খেলার মতোই দৈনন্দিন বিষয় হয়ে গেলেও আসল যুদ্ধও শুরু হতে পারে যে কোনো সময়!

গত কিছুদিনে কয়েক দফা প্রতিবেশী দক্ষিণ কোরিয়া আর তাদের মিত্র দেশ যুক্তরাষ্ট্রের ওপর হামলার হুমকি দিয়েছে উত্তর কোরিয়া৷ হুমকি অনুযায়ী কাজ হলে বেশ আগেই যুদ্ধ শুরু হয়ে যেতো৷ সেটা হয়নি৷ এবার তারা জাপানেও হামলার হুমকি দিয়েছে৷ কারণ একই৷ আগে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ সামরিক মহড়া দেখে ক্ষুব্ধ হয়েছিল উত্তর কোরিয়া৷ এ মহড়া আসলে তাদের ওপর হামলার পূর্বপ্রস্তুতি – এমন ধারণার কথা জানিয়েই সমাজতান্ত্রিক দেশটি বলেছিল, ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে এমন হুমকি দিতে থাকলে যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় হামলা চালাবে তারা৷

এ মুহূর্তে জাপানের সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়া চলছে যুক্তরাষ্ট্রের৷ তা দেখে উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে, জাপানে হামলা চালাতেও তারা কুণ্ঠা বোধ করবেনা৷ বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে পিয়ংইয়ং জানিয়েছে, বি-৫২ বোমারু বিমান নিয়ে মহড়াকে তারা হালকাভাবে নেয়ার মতো মনে করতে পারছেনা৷ বিমানগুলো যে তাদের খুব গুরুত্বপূ্র্ণ স্থাপনায় আঘাত হানার দূরত্বের মধ্যেই উড়েছে সে কথা জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘‘এটা ক্ষমার অযোগ্য উসকানি৷” কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র আগের মতোই বলে চলেছে, এটা নিতান্তই মহড়া, উত্তর কোরিয়ায় হামলা চালানোর কোনো পরিকল্পনা তাদের নেই৷

ওদিকে হলিউডও নামছে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে৷grad ঘরে তৈরি একটা উত্তর কোরীয় ভিডিওতে দেখানো হয়েছিল সে দেশের ছোড়া মিসাইলের আঘাতে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে ক্যাপিটল ভবন ধসে পড়েছে৷ বাস্তবে তেমন কিছু আসলে হয়নি৷ এই ভিডিও সারা বিশ্বে ছড়িয়ে যাবার পরপর হলিউডও যেন নড়েচড়ে বসেছে৷ সেখানে এবার তৈরি হবে ‘হোয়াইট হাউস ডাউন’ এবং ‘অলিম্পাস হ্যাজ ফলেন’ নামের দুটি ছবি৷ ছবি দুটোর কাহিনি একই৷ উত্তর কোরিয়া কীভাবে যুক্তরাষ্ট্রের মারে নাস্তানাবুদ হচ্ছে একটু ভিন্ন মোড়কে হলেও তা-ই দেখানো হবে ছবি দুটিতে৷

দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে ১৯৫৩ সাল থেকে চুক্তিতে স্বাক্ষর করে যুদ্ধ এড়িয়েছে উত্তর কোরিয়া৷ সম্প্রতি দেশটি ৫০ বছর আগে চুক্তিটি সমাপ্ত করার ঘোষণা দেয়৷ এ ছাড়া কিম জং উন ক্ষমতায় আসার পর থেকে গত এক বছরে দুবার পরমাণু পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া৷ প্রথমটি গত ডিসেম্বরে আর সর্বশেষ পরীক্ষাটি হয়েছে গত ১২ই ফেব্রুয়ারি৷

দুবারই বিশ্বব্যাপী নিন্দার মুখে পড়ে কমিউনিস্ট দেশটি৷ জাতিসংঘ শুরু থেকেই দেশটির ওপর আরো কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিয়ে আসছে৷ কিন্তু তাতেও কাজ কোনো লাভ হয়নি৷ দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতি চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসার ঘোষণার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ কোরিয়ার ওপর অতর্কিত পরমাণু হামলা চালানোর হুমকিও দিয়ে আসছে দেশটি৷ এর প্রেক্ষিতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ উত্তর কোরিয়ার আর্থিক লেনদেনও নিয়ন্ত্রণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷

এতকিছুর পরও উত্তেজনা কমছেনা৷ ক’দিন আগে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ঘোষণার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার ওপর পরমাণু হামলা চালানোর সম্ভাবনা পুনর্ব্যক্ত করেছিল উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷ জবাবে যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছিল, তারা সব ধরণের আক্রমণ সামলে নিজেদের তো বটেই, এমনকি দক্ষিণ কোরিয়াসহ সব মিত্র দেশের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রস্তুত৷ হুমকি-পাল্টা হুমকি সেই থেকে বলতে গেলে বিরামহীনভাবেই চলছে৷সূত্র: ইন্টারনেট

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল