June 29, 2017, 4:35 am | ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং,বৃহস্পতিবার, রাত ৪:৩৫

আন্দোলনের পথেই চলছেন খালেদা

661ঢাকা জার্নাল: বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া বলেছেন, সরকারের সাথে সংলাপ করে নয়, বরং আন্দোলনের পথে সরকারের পতনের মাধ্যমেই সমস্যার সমাধান হবে। মানিকগঞ্জে শনিবার এক জনসভায় তিনি এই বক্তব্য দেন।

এর আগে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছিলেন, আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব পেলে তারা সংলাপের বিষয়ে বিবেচনা করে দেখবেন।মানিকগঞ্জে সাম্প্রতিক সহিংসতায় নিহতদের পরিবারের সাথে সাক্ষাৎ এবং আক্রান্ত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িঘর পরিদর্শনে গিয়ে এক জনসভায় খালেদা জিয়া এই সরকার পতনের আন্দোলনের কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘কথা বলে লাভ হবে না। বরং আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারের পতন করতে হবে’।

খালেদা জিয়া বলেন, সরকার বিদায় না হলে হরতাল, অবরোধ, ঘেরাও-সহ সবধরণের কর্মসূচিই নেয়া হবে।

তিনি শাহবাগের আন্দোলনের সমালোচনা করে বলেন, সেখানকার আন্দোলনকারীরা সরকারেরই অংশ এবং তারা দেশের ক্ষতি করছে।

এর আগে সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছিলেন, লিখিতভাবে সরকার থেকে একটি সংলাপের প্রস্তাব দেয়া হলে তা তারা বিবেচনা করে দেখবেন।

এর জবাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেন, দ্বার খোলা আছে, তবে কোনও শর্ত দিয়ে আলোচনা হতে পারে না।

বিএনপির ১৮ এবং ১৯ মার্চের হরতালকে সামনে রেখে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এদিন বলেছিলেন, বায়বীয় প্রস্তাবের ভিত্তিতে কোন সংলাপ অনুষ্ঠিত হতে পারে না।

কিন্তু লিখিতভাবে সংলাপের প্রস্তাব এলে বিএনপি যে তা বিবেচনা করবে, সেটাও তিনি জানিয়ে দেন।

তবে সরকার বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার এবং নির্যাতনের মাধ্যমে দমন করার চেষ্টা করছে দাবি করে তিনি বলেন, এই মূহুর্তে সংলাপের কোন সুযোগ আছে বলে তিনি মনে করেন না।

তবে এর জবাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেন, সংলাপ করতে হলে বিএনপিকে আগে যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গ ত্যাগ করতে হবে।

শাহবাগে আন্দোলনকারীদের নিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সনের সাম্প্রতিক বক্তব্যেরও কড়া সমালোচনা করেন মি. হানিফ। তিনি বলেন, যেকোন বিষয়েই আলোচনার দ্বার খোলা আছে, তবে আলোচনায় বসতে হলে বিএনপিকেই আগে প্রস্তাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।

অন্য দিকে গ্রেপ্তারকৃত নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবীতে ১৮ এবং ১৯ তারিখে বিএনপির পূর্বঘোষিত হরতাল বহাল থাকবে বলেও জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *



এই পাতার আরো খবর -

জার্নাল